Breaking News
Home / আইন ও আদালত / মেয়র হিসেবে আবুল বাসার সুজন কে দেখতে চাই তানোর পৌরবাসী

মেয়র হিসেবে আবুল বাসার সুজন কে দেখতে চাই তানোর পৌরবাসী

সুজন রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি :

রাজশাহীর তানোর পৌরসভা এলাকায় নির্বাচনের আগাম হাওয়া বইতে শুরু করেছে। জানা গেছে, তানোর পৌর নির্বাচনের এখানো ঢের বাঁকি থাকলেও আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী সাম্ভব্য প্রার্থীরা বিভিন্ন কৌশলে আগাম-প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগে ব্যস্ত হয়ে উঠেছে।
আনুষ্ঠানিক ভাবে এখানো কোনো প্রার্থী চুড়ান্ত করা হয়নি, তবে মনোনয়ন প্রত্যাশী সাম্ভব্য প্রার্থীরা ব্যানার-ফেস্টুন ও গনসংযোগ এর মাধ্যমে নিজেদের প্রার্থী হবার বিষয়টি জানান দিচ্ছে। এদিকে বিএনপির প্রবীণ নেতা অধ্যাপক বিশ্বনাথ সরকার, তালন্দ ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মুনসুর রহমান, বাদল মন্ডল ও বর্তমান মেয়র মিজানুর রহমান মিজানসহ একাধিক প্রার্থী আলোচনায় রয়েছে।
অন্যদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের একাধিক প্রার্থী নিয়ে ভোটারদের মধ্যে আলোচনা থাকলেও আবুল বাসার সুজন কে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন দেবার বিষয়ে কেন্দ্রীয় কমিটির ও জেলা কমিটির সদস্যদের নীতিগত আনুষ্ঠানিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। দলের নীতি নির্ধারকরা বলেছেন একজন মেয়র প্রার্থী হিসেবে যা কিছু থাকার দরকার সবকিছুই আবুল বাশার সুজন এর মধ্যে রয়েছে। যেমন-একটির নির্বাচন করতে প্রার্থীর আর্থিক স্বচ্ছলতা, পারিবারিক ঐতিহ্য, উন্নয়ন মানসিকতা, সাংগঠনিক দক্ষতা, পরিচ্ছন্ন ব্যক্তি ইমেজ, নম্র-ভদ্র ও আচরণ শালীনতা ইত্যাদি প্রয়োজন তার সব গুনাবলী সুজনের মধ্যে বিদ্যমান রয়েছে এসব বিবেচনায় আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন তার প্রায় নিষ্চিত বলে মনে করা হচ্ছে।
তবে স্থানীয়রা বলছে, আওয়ামী লীগ থেকে সুজনে মনোনয়ন দেয়া হবে প্রধানত দুটি কারণে প্রথমত তিনি নৌকার ভোট পাবেন, দ্বিতীয়ত তানোর পৌরসভায় বিএনপির ভোট ব্যাংক বা চালিকা শক্তি বলে পরিচিত যারা আর্থিক সহায়তা থেকে শুরু করে ভোটের মাঠে বিএনপির ভোট নিয়ন্ত্রণ করেন এমন নেতাকর্মীর সিংহভাগ সুজনের ব্যবসার সঙ্গে সম্পৃক্ত রয়েছে তায় বিএনপির এসব নেতাকর্মীর ভোট সূজনের পক্ষে যাবে এটা নিয়ে ভিন্নমত পোষণের কোনো সূযোগ নাই, এই বিবেচনায় সুজন আওয়ামী লীগের প্রার্থী হলে তার বিজয় প্রায় সুনিশ্চিত।
তানোর পৌর বিএনপির দায়িত্বশীল এক জৈষ্ঠ নেতা বলেন, তারা বিএনপির রাজনীতি করেন সত্য, সূজনের ব্যবসা থেকে তারা পরিবার পরিচালনা করেন তাই সুজন প্রার্থী হলে তাকে ভোট দেয়া তাদের নৈতিক দায়িত্ব এর বিকল্প নাই এবং এর বত্যয়ও ঘটবে না, তাছাড়া পৌরসভা নির্বাচন সরকার পরিবর্তনের নির্বাচন নয় তাই বিএনপি করি বলেই ধানের শীষে ভোট দিতে হবে এমন কোনো কথা নয়।
বিভিন্ন সুত্রে জানায়, বোয়ালিয়া থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি তানোর পৌর এলাকার বাসিন্দা, প্রথম শ্রেণীর ঠিকাদার (ব্যবসায়ী) মেধাবী ও তরুণ নেতৃত্ব আবুল বাশার সূজন তানোর পৌরসভার আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়নে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা ইচ্ছে প্রকাশ করে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে দলমত সবশ্রেণী পেশার মানুষের কাছে তিনি দোয়া প্রার্থনা করে তাকে সহযোগীতার আহবান জানিয়ে মাঠে নেমেছেন। পরিচ্ছন্ন ব্যক্তি ইমেজ সম্পন্ন প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে প্রতিদন্দিতার দৌড়ে তিনিই একমাত্র প্রার্থী এবং তাঁর অনুগত বিশাল কর্মী-বাহিনী রয়েছে ইতমধ্যে তারা যেকোনো মূল্য তাকে নিয়ে পৌরসভা নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়ে মাঠে শক্ত অবস্থান গড়ে তুলে দলের নীতিনির্ধারক মহল ও সাধারণ মানুষের দৃষ্টি কাড়তে সক্ষম হয়েছে।
ইতমধ্যে সমাজের হতদরিদ্র শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ, মসজিদ-মাদরাসা, মন্দির-গীর্জা ইত্যাতি ধর্মী ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে অনুদান এবং খেলা-ধূলা ও বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের মধ্যদিয়ে সুজন নির্বাচনের আগাম প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগের মাধ্যমে পৌরবাসীর মধ্যে তার নিজস্ব বলয় বা অবস্থান গড়ে তুলেছেন।
এছাড়াও তিনি প্রতিনিয়ত পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায় দলমত নির্বিশেষে সব শ্রেণী-পেশার মানুষের সঙ্গে মতবিনিময়, উঠান বৈঠক ও পথসভা ইত্যাদি কর্মসূচির মাধ্যমে ব্যস্ত সময় পার করছেন। অপরদিকে বিভিন্ন সময়ে ঘরোয়া আড্ডায় নাগরিকগণের কাছে অঙ্গীকার প্রকাশ করে তিনি বলেছেন, বিজয়ী হলে তিনি তার সকল যোগ্যতা ও দক্ষতা দিয়ে পৌরসভার অবহেলিত জনগণের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ করবেন। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে তিনি রাজনীতি করেন।
ফলে তাঁর ব্যক্তিগত কোনো চাওয়া-পাওয়া নেই, মূত্যুর আগে তিনি আওয়ামী লীগের মেয়র নির্বাচিত হয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে তানোর পৌরবাসির জন্য একটা কিছু করে যেতে চান যেটা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে আগামী প্রজন্মের কাছে এটাই তার প্রত্যাশা। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয়, আঞ্চলিক ও স্থানীয় পর্যায়ের অনেক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে তার রয়েছে গভীর ও নিবিড় সম্পর্ক। মেধাবী ও তরুণ নেতৃত্ব একজন শিক্ষিত সৎ, যোগ্য ও ভালো মানুষ হিসেবে তার একটা পরিচ্ছন্ন ব্যক্তি ইমেজ রয়েছে সর্ব মহলে।
আগামী পৌরসভা নির্বাচনে পরিচ্ছন্ন ব্যক্তি ইমেজ সম্পন্ন নেতৃত্ব হিসেবে তিনিই একমাত্র প্রার্থী হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন। ফলে অনেক সুবিধেও রয়েছে তার পক্ষে। স্থানীয় রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের ও তানোর পৌরবাসীর অভিমত, আগামী নির্বাচনে মেয়র হিসেবে আবুল বাশার সুজন কে দেখতে চাই। এবং সাধারন মানুষের প্রত্যাশা সবদিকে বিবেচনায় করে সুজন মেয়র প্রার্থী হলে দলমত নির্বিশেষে সবাই ভোট দিয়ে তাকে জয়জক্ত করবেন বলে জানিয়েছেন।

Check Also

দেশবাসীকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানালেন- ইউপি’র চেয়ারম্যান আসাদুল্লাহ আসাদ

ময়মনসিংহ ত্রিশাল থেকে এস.এম রুবেল আকন্দ: পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে দেশবাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *