Breaking News
Home / অপরাধ / বছরের পর বছর কেটে গেলেও বিচার না হওয়ায় হতাশ স্বজনরা

বছরের পর বছর কেটে গেলেও বিচার না হওয়ায় হতাশ স্বজনরা

বছরের পর বছর কেটে গেলেও বিচার পাননি রানা প্লাজায় হতাহতদের স্বজনরা। ভবন মালিক সোহেল রানার বিচার না হওয়ায় হতাশ তারা। হারিয়ে যাওয়া স্বজনকে ফেরত না পেলেও, দুর্ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তিদের সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান স্বজনরা। পোশাক শ্রমিক অধিকার আন্দোলনের নেতাদের দাবি, শ্রমিকের নিরাপত্তা ও ক্ষতিপূরণ আইন পরিবর্তন করতে হবে।

২৪শে এপ্রিল ২০১৩। রানা প্লাজা ধসের দিনটির স্মৃতি এখনো তরতাজা রাশিদার মায়ের কাছে।আমার সন্তানের কবরটা দেখার ভাগ্য আমার হলো না।’ বলছিলেন রাশিদার মা মর্জিনা বেগম।আগের দিনই পেয়েছিলেন রানা প্লাজা ভবনে ফাটলের খবর। আর তাই মেয়েকে কারখানায় যেতে বারণ করেছিলেন মা। কিন্তু একটি ফোন পেয়ে তাড়াহুড়ো করে বাসা থেকে বের হয়ে যান রাশিদা। এরপর আর কোনো খোঁজ মেলেনি তার। পরের এক মাস কেটেছে রানা প্লাজার ধ্বংসস্তুপ আর অধরচন্দ্র স্কুলের মাঠে ছোটাছুটি করে। তবে শেষ পর্যন্ত রাশিদা রয়ে গেছেন নিখোঁজের তালিকায়।মর্জিনা বেগম বলেন, ‘২৪ এপ্রিলের পর থেকে প্রতিদিন সকালে যেতাম আর আর রাত দশটায় ফিরে আসতাম। পচা লাশগুলোর মধ্যে মেয়েটাকে খুঁজেছি কিন্তু পাইনি।

পদ্মার সর্বনাশা ভাঙনে বসত বাড়ি ফসলি জমি সব হারিয়ে স্ত্রী আর চার সন্তানের হাত ধরে মানিকগঞ্জের শিবালয় থেকে সাভারে ঠাঁই নেন ইউসুফ আলী। সে প্রায় আট বছর আগের ঘটনা। সকাল বিকাল রিকশা চালিয়েও যখন সংসারের খরচ জোগাতে হিমশিম অবস্থা তখন মেয়ে ময়না বেগমকে পাঠিয়েছিলেন রানা প্লাজার একটি কারখানায়। ময়না বেগমের আর কোনো খোঁজ মেলেনি।এরকম অসংখ্য নিখোঁজ আর নিহত আহতের স্বজনদের আর্তনাদ সাভারের বাতাসে কান পাতলে শোনা যায় এখনো।

পাঁচ বছরেও রানা প্লাজা দুর্ঘটনার বিচার না হওয়াকে হতাশাজনক বলছেন পোশাক শ্রমিক অধিকার আন্দোলনের নেতারা। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার জন্যই দ্রুত এর বিচারকাজ শেষ করার দাবি তাদের।শ্রমিক নেত্রী তাসলিমা আক্তার বলেন, ‘একটা ঘটনায় যখন দোষীদের শাস্তি না হয়, এটাকে আমরা কাঠামোগত হত্যাকাণ্ড বলছি। তখন কিন্তু অন্যান্য কারখানার মালিকদের বা অন্যান্যদের সতর্ক হওয়ার সুযোগ নষ্ট হয়ে যায়। সরকার যদি শ্রমিকবান্ধব হয় তাহলে সরকারের দায়িত্ব হচ্ছে এই বিচার প্রক্রিয়া যাতে দ্রুত সম্পন্ন হয় সেজন্য ব্যবস্থা নেয়া।শ্রমিকদের নিরাপত্তা ও যেকোনো দুর্ঘটনার পর ক্ষতিপূরণ আইন পরিবর্তনেরও দাবি শ্রমিক নেতাদের।

কোন নিয়তি নির্ধারিত ঘটনা নয়, নয় কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ। শুধুমাত্র কিছু মানুষের অসচেতনতা আর অবহেলার কারণে ধসে পড়ে রানা প্লাজা। প্রাণ যায় অসংখ্য মানুষের। ক্ষতিগ্রস্তরা বলছেন, এই ঘটনায় হয়তো তারা ক্ষতিপূরণ পেয়েছেন অথবা পাননি কিন্তু তাদের একটাই দাবি, এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার।

Check Also

ঠাকুরগাঁওয়ে সালন্দর ইসলামিয়া কামিল মাদরাসায় শেখ রাসেল এঁর জন্মবার্ষিকী উদযাপন

ঠাকুরগাঁওয়ে সালন্দর ইসলামিয়া কামিল মাদরাসায় নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে শেখ রাসেল এঁর জন্মবার্ষিকী উদযাপন করা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *