Breaking News
Home / অপরাধ / প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে আইনি স্বচ্ছলতা বরখাস্তের পরও বহাল তবিয়তে অফিস করছেন ডা. সাইফুল

প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে আইনি স্বচ্ছলতা বরখাস্তের পরও বহাল তবিয়তে অফিস করছেন ডা. সাইফুল

ফাহাদ আহমেদ মিঠু (সি আর):

মন্ত্রণালয়ের আদেশে সাময়িক বহিষ্কার হয়েও বহাল তবিয়তে অফিস করছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের লাইফস্টাইল,হেলথ এডুকেশন অ্যান্ড প্রমোশনের লাইন ডিরেক্টর ডা. সাইফুল ইসলাম। তিনি অফিসের গাড়ি, ড্রাইভার সব কিছু ব্যবহার করছেন। এবিষয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এটা কীভাবে সম্ভব? দুর্নীতির দায়ে তার বিরুদ্ধে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন দুদক। সে মামলায় আদালতে আত্নসমর্পণ করে জামিনে আসেন ডা. সাইফুল ইসলাম। এরপর থেকে নিয়মিত অফিস করে চলেছেন তিনি। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গতকালও তিনি নিজ দপ্তরে অফিস করছেন বলে জানা গেছে। নিচ্ছেন অফিসিয়াল সব সিদ্ধান্ত। এ নিয়ে দেখা দিয়েছে আইনি জটিলতা। কারণ, আইনি বিভিন্ন ধাপ পেরিয়ে অবশেষে গত ২৮ নভেম্বর সাময়িক বরখাস্ত হন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আলোচিত দুর্নীতিবাজ হিসেবে খ্যাত ডা. সাইফুল ইসলাম। স্বাস্হ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব লোকমান হোসেন তার সাময়িক বরখাস্তের আদেশে স্বাক্ষর করেন। একই তারিখে মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মো. শাহাদাত হোসেন কবির স্বাক্ষরিত চিঠিতে ডা. সাইফুল ইসলাম সাময়িক বহিষ্কারের আদেশ জারি করে তা সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তরে অনুলিপি পাঠানো হয়। মন্ত্রনালয়ের ৪২২ নং স্মারকের এ আদেশ জারি করা হয়। ওই প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে বাংলাদেশ সার্ভিস রুলস (বি এস আর) পার্ট- ১ এর ৭৩ নং নোট -২ অনুযায়ী ফৌজদারি অভিযোগে অথবা দেনার দায়ে আটক সরকারি কর্মচারী গ্রেফতার হওয়ার তারিখ/ জেল হাজতে প্রেরণের তারিখ সাময়িক বরখাস্ত বলে বিবেচিত হবেন। সেহেতু মন্ত্রিপরিষদ সচিবালয় সংস্থাপন বিভাগের অফিস স্মারক নং ED( Reg- vi)- s-123/78115(500) kfdvJ 21 bcHmghv 2078 অনুযায়ী ‘ কোনো কর্মচারি গ্রেপ্তারের পর জামিন লাভ করিলেও মামলার কার্যক্রম শেষ না হওয়া পর্যন্ত বরখাস্ত হিসেবে থাকা উচিত। এ ক্ষেত্রে যাহাতে কোনো জটিলতা সৃষ্টি না হয় সেই জন্য কর্তৃপক্ষের সাময়িক বরখাস্তের আনুষ্ঠানিক আদেশ জারি করিতে হইবে। যেহেতু রাষ্ট্রপতির সচিবালয়ের ০৯.০২.১৯৮৯ খ্রী. তারিখের রাস/ জানি( দুদ) / চা- ১(৩১) ঢাকা /৮৮-১৪৩(৪৫) নং আদেশ অনুযায়ী দুর্নীতিমূলক মামলায় যে কোনো পাবলিক সার্ভেন্ট অভিযুক্ত হয়ে যদি গ্রেফতার হয় বা কোর্টে আত্নসমর্পণ করেন, তাকেও গ্রেফতার করার বা জামিন পাওয়ার দিন থেকে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষ সাময়িকভাবে বরখাস্ত করার কথা। সেহেতু ডা. সাইফুল ইসলামকে বাংলাদেশ সার্ভিস রুলস( বিএসআর) পার্ট-১ এর ৭৩ নং বিধির নোট-২ তৎকালীন মন্ত্রীপরিষদ সচিবালয়ের সংস্থাপন বিভাগের অফিস স্বারক ED(Reg- vi)- s-123/78115(500) kfdvJ 21 bcHmghv 2078 এবং রাষ্ট্রপতি সচিবালয়ের ০৯.০২.১৯৮৯ খ্রি. তারিখের রাস / জানি /( দুদ) চা-১(৩১) ঢাকা ৮৮-১৪৩(৪৫) নং আদেশ অনুযায়ী আদালতে আত্নসমর্পণের তারিখ ২০.০১.২০২০ খ্রি. থেকে চাকরি হতে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হলো। অর্থাৎ প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ডাক্তার সাইফুল ইসলামের সামরিক বরখাস্ত ২০.০১.২০২০ হতে বলবৎ হিসেবে কার্যকর হওয়ার কথা। এসময় থেকে তিনি বিধি অনুযায়ী খোরপোশ ভাতা প্রাপ্য হবেন। কিন্তু অফিস চালিয়ে যাওয়া কি সিদ্ধ হবে জানতে চাইলে, প্রজ্ঞাপনে স্বাক্ষর করা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. শাহাদাত হোসেন কবির সাংবাদিকদের বলেন,আমরা তাকে বরখাস্ত করে তার অনুলিপি সংশিষ্ট সকল দপ্তর এ পাঠিয়ে দিয়েছি। এখন সে কিভাবে অফিস করছে তা সংশ্লিষ্ট দপ্তর বা কর্তৃপক্ষ বলতে পারবেন। তবে হওয়ার কথা নয়। এ বিষয়ে জানতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এর অফিশিয়াল নম্বরে বারবার চেষ্টা করেও কাউকে পাওয়া যায়নি। একই বিষয়ে জানতে ডা.সাইফুল ইসলামের মোবাইল নাম্বারে বারবার চেষ্টা করে মোবাইল রিং হলেও তিনি তা রিসিভ করেননি। একই বিষয়ে জানতে অধিদপ্তরের এডিজি ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরার মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করা হলে প্রশ্ন শোনার পর তিনি একটি জরুরি মিটিংয়ে আছেন বলে ফোনটি কেটে দেন। এবিষয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কেউই মুখ খুলতে চাননি।মহাপরিচালকের দপ্তর থেকে সাময়িক বরখাস্ত হওয়া ডা. সাইফুল ইসলামকে অফিস চালিয়ে যেতে কোনো আদেশ দেয়া হয়েছে কি- না তাও জানা যায়নি। তবে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের অনেকেই বলেছেন, সাময়িকভাবে বরখাস্ত হলে ওই কর্মকর্তাকে একই ধরনের দায়িত্বে রাখার নজির নেই বললেই চলে।

Check Also

নতুন বছরের শুরুতে প্রতিবন্ধি জাহাঙ্গীরের পাশে তৌফিক এন্টারপ্রাইজ

আশিকুর রহমান নয়নমাটিরাঙ্গা উপজেলা প্রতিনিধিঃ খাগড়াছড়ি জেলার মাটিরাঙ্গা উপজেলাধীন এক নং তাইন্দং বাজারের তৌফিক এন্টারপ্রাইজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *