Breaking News
Home / অপরাধ / লৌহজংয়ে বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাক্ষান করায় স্কুলছাত্রীর হাত কেটে দিল বখাটে

লৌহজংয়ে বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাক্ষান করায় স্কুলছাত্রীর হাত কেটে দিল বখাটে

ফাহাদ আহমেদ মিঠু (সি আর):

মুন্সিগঞ্জের লৌহজংয়ে বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাক্ষান করায় মাহমুদা হাসনা মিম (১৭) নামে উপজেলার খিদিরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রীর হাত কেটে দিয়েছে এক বখাটে। সে সিরাজদিখান উপজেলার জৈনসার ইউনিয়নের জৈনসার পশ্চিম পাড়া গ্রামের আমির হোসেন শেখের মেয়ে। গত (৩১ অক্টোবর) বিকেল ৪ টার দিকে উপজেলার খিদিরপাড়া গ্রামে মাহমুদা হাসনা মিমের নানাবাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় লৌহজং থানায় স্কুলছাত্রীর ভাই আরিফ হাসান শেখ বাদী হয়ে অভিযোগ দায়ের করেন। সিরাজদিখান উপজেলার জৈনসার ইউনিয়নের কাঁঠালতলী গ্রামের আজিজ মৃধার ছেলে সংগ্রাম (২৭), শাহ আলম মৃধার ছেলে সংগ্রাম মৃধা (২৫), কুদ্দুছের ছেলে আফছার (২৮) কে বিবাদী করে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। লিখিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে লৌহজং থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। অভিযোগ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, অনুমানিক ৬ মাস পূর্বে সিরাজদিখান উপজেলার কাঁঠালতলী গ্রামের শাহ আলম মৃধার ছেলে সম্রাট মৃধা স্কুলছাত্রী মাহমুদা হাসনা মিমের পরিবারের কাছে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। মিমের পরিবারের লোকজন বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্কুলে যাতায়াতের পথে মিমকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতিসহ তাকে বিয়ে না করলে ভালো হবেনা মর্মে হুমকি দিয়ে আসছিল বখাটে সম্রাট মৃধা সহ তার লোকজন। বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ার জেরে গত (৩১ অক্টোবর) বিকেল ৪ টার দিকে উপজেলার খিদিরপাড়া গ্রামস্থ মিমের বসতবাড়িতে প্রবেশ করে সম্রাট মৃধার নেতৃত্বে সঈীয় সংগ্রাম ও আফছারসহ বেশ কয়েকজন মাহমুদা হাসনা মিমের উপর অতর্কিত হামলা চালায় এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে কোপ দিয়ে বাম হাতে গুরুতর কাটা রক্তাক্ত জকম করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে লৌহজং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে গেলে অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকার মিডফর্ড হাসপাতালে রেফার করেন। বর্তমানে স্কুলছাত্রী শংকামুক্ত। ভিকটিমের ভাই আরিফ হাসান শেখ জানান, বাড়ির দক্ষিণ পাশের মাঠে আমার মা ও বোন মাহমুদা হাসনা মিম ধান শুকানোর কাজে ব্যস্ত ছিল। সেখান থেকে আমার বোন মোবাইল চার্জ দেওয়ার জন্য ঘরে যায়। ঘর থেকে বের হয়ে উঠানে আসামাত্রই পূর্বে থেকে ওতপেতে থাকা সংগ্রাম আমার বোনের মুখ, চেপে ধরে, সম্রাট মৃধা বোনের পরনের ওড়না দিয়ে তার গলায় প্যাঁচ দিয়ে বাড়ির পাশে ফাঁকা জায়গায় নিয়ে যায় এবং হত্যার উদ্দেশ্যে তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে। ওই কোপ ফেরাতে গিয়ে মিমের বাম হাতে গুরুতর জখম হয়। সম্রাটের সাথে থাকা আফছারসহ তিনজন আমার বোনকে এলোপাতাড়ি কিল- ঘুষি ও লাথি মেরে পালিয়ে যায়। আমার বোনের হাতে ১৫-১৬ টি শেলাই পরেছে। আমি এ ব্যাপারে থানায় তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছি। আমরা ডাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। এদিকে অভিযুক্ত সম্রাট মৃধার সাথে যোগাযোগ করে এব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আমি তো তখন বাড়িতে ঘুমিয়ে ছিলাম আমি এর কিছুই জানিনা। লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মাসুদুর রহমান বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Check Also

পোরশা সীমান্তে ভারতের অভ্যন্তরে এক বাংলাদেশী আটক

নাহিদ পোরশা (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ নওগাঁর পোরশা নিতপুর সীমান্তে ভারতের অভ্যন্তরে মনিরুল ইসলাম (২৫) নামে এক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *