Breaking News
Home / অপরাধ / রাজশাহীতে সর্বত্রই মানুষের স্রোত, স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই

রাজশাহীতে সর্বত্রই মানুষের স্রোত, স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই

সুজন রাজশাহী প্রতিনিধি:

দেশে করোনা সংক্রমণের হার এখন ঊর্ধ্বমুখী। আক্রান্তের সঙ্গে প্রতিদিন বাড়ছে মৃত্যুও।কিন্তু স্বাস্থ্যবিধি মানছে না কেউ। শপিংমল-দোকান খুলে দেওয়ার পর সর্বত্র মানুষের ভিড় বাড়ছে।
করোনা সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি ও শারীরিক ও সামাজিক দূরত্ব মানছে না কেউ। নিয়ম না মেনে জনসমাগম করায় আগামী দিনে রাজশাহীতে করোনা পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।রাজশাহীতে লকডাউনের দুই সপ্তাহ পরে শপিংমল ও দোকানপাট খুলে দেওয়া হলেও ক্রেতা- বিক্রে তাদের কেউ মানছে না স্বাস্থ্যবিধি। মহানগরীর কাপড়ের দোকান, পাইকারি ও কাঁচা বাজারে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড় থাকলেও ক্রেতা- বিক্রেতা কেউই মানছেন না শারীরিক দূরত্ব।নির্দেশনা উপেক্ষা করে কারণে-অকারণে মানুষ রাস্তায় বের হচ্ছেন। মাস্ক, সামাজিক দূরত্ব ছাড়ায় ভিড় করছেন রাস্তায়। অহেতুক আড্ডা ও ঘোরাফেরা করছে মানুষ।
চলমান সর্বাত্মক লকডাউনের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাসহ বেশকিছু শর্তে দোকান মালিকদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সরকার রোববার (২৫ এপ্রিল) থেকে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত দোকানপাট ও শপিংমল খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেয়। যদিও পরে তা বিশেষ বিবেচনায় সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়।এ বিষয়ে সরকারি প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়, ব্যাপক সংখ্যক মানুষের জীবন-জীবিকার বিষয় বিবেচনা করে দোকান পাট-শপিংমল সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন সাপেক্ষে খোলা রাখা যাবে।বিধি প্রতিপালনের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট বাজার বা সংস্থার ব্যবস্থাপনা কমিটি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।বুধবার (২৮ এপ্রিল) মহানগরীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, প্রধান সড়কে যান চলাচল কম হলেও পাড়া-মহল্লায় অবাধে চলছে যানবাহন। বেশিরভাগ মানুষ স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই রাস্তায় ঘোরাঘুরিসহ তাদের প্রয়োজনীয় কাজ করছেন এবং সামাজিক দূরত্বের তোয়াক্কা না করেই দোকানে বসে দিচ্ছে আড্ডা। সংক্রমণ রোধের সতর্কতা নেই বললেই চলে। ক্রেতাদের চাপে মহানগরীর সাহেব বাজার এলাকায় যানজটও তৈরি হচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে প্রশাসনের কার্যক্রমও কম দেখা গেছে। মার্কেটের ভেতরে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে দোকান মালিক সমিতির নেতাদেরও তেমন কোনো তৎপরতা নেই।পরিবারকে সঙ্গে নিয়ে মহানগরীর আরডিএ মার্কেটে কেনাকাটা করতে আসা বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত রিফাত উল্লাহ বাংলানিউজকে বলেন, মানুষ চলাফেরায় মাস্ক ব্যবহার ও সামাজিক দূরত্ব মানছে না। শপিংমলে ঠেলাঠেলি করে মানুষ কেনাকাটা করছে। লকডাউন কাগজে-কলমে থাকলেও বাস্তবে কোনো প্রয়োগ নেই। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে প্রশাসনের সচেতনতামূলক কার্যক্রম দেখছি না।জানতে চাইলে রাজশাহী ব্যবসায়ী সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সেকেন্দার আলী বাংলানিউজকে বলেন, মার্কেটের অবকাঠামোগত কারণে অনেক ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে চলা সম্ভব হয় না। তবে ব্যবসায়ীরা সচেষ্ট আছেন। কারণ স্বাস্থ্যবিধি না মানলে আবার হয়তো দোকানপাট বন্ধের সিদ্ধান্ত আসতে পারে। উদাসীনতার কারণে কিছু ব্যবসায়ী হয়তো সবসময় মাস্ক পরছেন না। আমরা বিষয়গুলো তদারকি করছি। এক্ষেত্রে প্রশাসনের কঠোর ভূমিকা প্রয়োজন।
রাজশাহী পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক বাংলানিউজকে জানান, স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে আমরা সরকারি সরকারি নিয়ম-নীতি অনুযায়ী কাজ করছি। শপিংমল ও কাঁচাবাজারে মাইকিং করা হচ্ছে। যারা স্বাস্থ্যবিধি মানছে না তাদের বিষয়ে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান পুলিশ কমিশনার।

Check Also

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে অগ্নিকান্ডে ১টি বাড়ি ভস্মীভূত

গীতি গমন চন্দ্র রায় গীতি, স্টাফ রিপোর্টার: ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ গতকাল রাত ১০/১১ ঘটিকার সময় হঠাৎ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *