Breaking News
Home / আইন ও আদালত / নিয়োগ দু’য়েকদিনেই প্রধান বিচারপতির

নিয়োগ দু’য়েকদিনেই প্রধান বিচারপতির

দুই মাস ১৮ দিন ধরে খালি রয়েছে প্রধান বিচারপতির পদ। সিনিয়র আইনজীবী শাহদীন মালিক এর মতে, প্রধান বিচারপতি নিয়োগ না হওয়ায় বিচার বিভাগের ওপর আস্থা কমেছে। সুপ্রিম কোর্ট বার সভাপতি বলছেন, বিচারবিভাগ এখন অভিভাবকহীন। যদিও অ্যাটর্নি জেনারেলের দাবি, প্রধান বিচারপতি না থাকায় বিচারবিভাগে কোন সংকট নেই। এদিকে দু-একদিনের মধ্যে প্রধান বিচারপতি নিয়োগ হবে বলে আদালত পাড়ায় জোর গুঞ্জন রয়েছে।

প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহার পদত্যাগের ২ মাস ১৮ দিন পার হলেও নিয়োগ হয়নি প্রধান বিচারপতি। আপিল বিভাগের জেষ্ঠ বিচারপতি আব্দুল ওয়াহহাব মিঞার নেতৃত্বেই চলছে দেশের বিচারবিভাগ। সরকারের পক্ষ থেকে শিগগিরই প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দেয়ার কথা বলা হলেও এতদিনেও তা না দেয়ায় বিচারবিভাগের ওপর আস্থা কমেছে বলে মনে করেন সিনিয়র আইনজীবী শাহদীন মালিক। তিনি বলেন, ‘প্রধান বিচারপতি ছাড়া বাংলাদেশ আমরা কখনো চিন্তা করি না। আশঙ্কাও করি না। সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছি প্রধান বিচারপতি ছাড়া সুপ্রিমকোর্টে আমি আর ওকালতি করবো না।’ অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, প্রধান বিচারপতি ছাড়া কেউ যদি কোর্টে আসতে না চান সেটাকে নাটকীয় ছাড়া কিছুই না।

সুপ্রিম কোর্ট বার সভাপতি মনে করেন, প্রধান বিচারপতির শূন্যতায় বিচারবিভাগ অভিভাবকহীন, যদিও অ্যাটর্নি জেনারেল বলছেন, প্রধান বিচারপতি না থাকায় কোন সংকট নেই বিচারবিভাগে। সুপ্রিম কোর্ট বার সভাপতি বলেন, এই বিভাগটি এতিম অবস্থায় পরিচালিত হচ্ছে। এই বিভাগের প্রধান নাই। শাহদীন মালিক সাহেব যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আরোও কিছুদিন পর অধিকাংশ আইনজীবী সেই সিদ্ধান্ত নেবেন। অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণভাবে রাষ্ট্রপতির বিষয়। রাষ্ট্রপতি করবেন এটাতো চিরদিন ফাঁকা থাকবে না। আইন মন্ত্রণালয়ের সূত্রে জানা গেছে, দু-একদিনের মধ্যে ২২তম প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দিবেন রাষ্ট্রপতি। দায়িত্বরত প্রধান বিচারপতি আব্দুল ওয়াহহাব মিঞাই প্রধান বিচারপতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

Check Also

ঠাকুরগাঁওয়ে ভাষাসৈনিক দবিরুল ইসলাম স্মরনে বৃক্ষরোপন কর্মসূচী

বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, সাবেক এমএলএ, ভাষাসৈনিক, জেলার কৃতিসন্তান, বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট সহচর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *