Breaking News
Home / প্রচ্ছদ / আমার কাছে কোন ঈদ নাই, আমার খালি খুদা আছে

আমার কাছে কোন ঈদ নাই, আমার খালি খুদা আছে

এস.এম রুবেল আকন্দ:

ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার ১নং ধানীখোলা ইউপি’র চেয়ারম্যান আছাদুল্লাহ আছাদ তার নিজস্ব ফেসবুক আইডিতে লিখেছেন তা হুবহু তুলে ধরা হলো আমার কাছে কোন ঈদ নাই, আমার খালি খুদা আছে, আর আছে হাহাকার আমার সহজে মৃত্যু নাই, ভাইরাস নাই, সারাদিন রোদ-বৃষ্টিতে ঘুইরা দুমুঠো চাল জোগাড়ের আশায় সুইটা বেড়াই, সন্ধ্যায় যখন বস্তির ডেরায় ফিরি, তখন খুদা আর অসুস্থতার যন্ত্রণায় কিছু প্রাণ বিরামহীন চিৎকার কইরা কান্দে, তবে আমার প্রশ্ন আছে, আপনাগোর কাছে না, আমার সৃষ্টিকর্তা আল্লাহর কাছে, আল্লাহ তুমি ধনী গরিবের বৈষম্য বোঝাইতে আমাগোর মত লক্ষ, লক্ষ, কোটি, কোটি মানুষ কেন পৃথিবীতে সৃষ্টি করলা, এই জীবনে অনেক গল্প শুনছি, রাজা, বাদশা ফকির হইয়া মরছে, সেটাতো হাতেগোনা দুই-একজন, অথবা শত শত জন, বা হাজার হাজার জন, আমাগোর মত তারা তো সংখ্যায় কোটি কোটি জন নয়, তোমার লীলা বোঝা বড় দায়, তার পরেও আমার প্রশ্ন এক জীবনে ওই উপর তলার মানুষ গুলা তোমার কাছে এত প্রিয় কেন, কেন তাদের কথা তুমি এত মনে রাখো, তাদেরকে তুমি সম্মান দিছো, টাকা দিছো, জমি জিরাত, শক্তি, সবকিছু দিছ এক জীবনে, তারা তোমার ঘর বানাইয়া দেয়, বড় বড় মসজিদ মন্দির, প্যাগোডা, গির্জা, এজন্য তুমি এত খুশি, অথচ আমারে জন্ম দিলা, একটা থাকার ভিটামাটি দিলানা, একটা ঘর করার সামর্থ্য দিলানা, আল্লাহ ঝড় দিলা, বৃষ্টি দিলা, বন্যা দিলা, সেই বানের জলে আমাগো গ্রাম ডুইবা যায়, বৃষ্টির জলে ভিজি, বানের জলে ডুবি, বুক সমান পানিতে রিস্কা টানি অথৈ জলে নৌকা বাই, ঝড়ের রাতে ছোট্ট টুনি জালে মাছ ধরি, এক মুঠা চাল কেনার আশায়, আর ওই দালানে বইসা যারা আমাগো খবর পায়, ছবি তুলতে আসে মাঝে মাঝে শুকনা খাবার হাতে নিয়া, বাড়িতে ছয়,সাত জন মানুষ তিন চার দিনের অনাহারে এক পোটলা শুকনা খাবার দেয় অনেকক্ষণ লাইনে দাঁড় করাইয়া, কেউ আবার পানির মধ্যে ডুব দিয়া মাথাটা একটু ভাসায়া খাবার নিতে কয়, ছবি তোলার জন্য, কত রঙ্গ রস যে চলে আমাগো নিয়া, আল্লাহ সারাটা জীবন রঙ্গ রস তারাই কইরা যাইব, আমাগোর কি? কোন হক নাই, আমরা কি? একবারও ওই দালান বাড়ি আলা মানুষগুলোরে শুকনা খাবার দিতে পারমু না আমার খুব ইচ্ছা হয় আল্লাহ, একবার তুমি ওই উপর তলার মানুষ গুলারে ডুবাইয়া দেখো, বন্যার জলের যে কি কষ্ট, ক্ষুধার চিৎকার কখনো কখনো মৃত্যুর চেয়েও ভয়ঙ্কর, আল্লাহ মৃত্যুর যদি দিবা এত কষ্ট দিয়া দেও কেন, সারা শরীরটা কেমন ঝিম ধইরা থাকে শক্তি পাই না, গেল রমজানে এক বাড়ি থাইকা ইফতার দিছিলো, পোলাও ভাত, গরুর মাংস, আহ, সেই যে মাংস খাইছিলাম, আর খাওয়া হইল না, একদিন পর ঈদ পোলা মাইয়াগুলার জন্য একটা মুরগি কিনতে পারি নাই, ভাত নাই, মাংস পামু কনে, আল্লাহ জীবন দিলা, কষ্ট দিলা, অসুস্থতা দিলা, ভিক্ষুক বানাইলা কেন, আল্লাহ এত মানুষ সৃষ্টি করলা তাগর বিবেক দিলানা কেন, আল্লাহ তার পরেও আমি খুশি, আমার হাতে বোনা ধানের চারায় ওই উপরওয়ালার প্লেটে ভাত, আমার রক্ত-ঘামে গড়া ওই বড় বড় বাড়ি, আমার ঘরে কখনো কখনো শূন্য হাঁড়ি, তবুও টানি তোমার আশায় আমার জীবন গাড়ি, মানুষ হিসেবেই আমারে ফিরিয়া নিও তোমার ওই অনন্তকালের বাড়ি।

Check Also

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথম মেধাতালিকা প্রকাশ

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ( ববি) তে ২০২০-২১ স্নাতক ( সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার মেধাতালিকা প্রকাশ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *