Breaking News
Home / জাতীয় / চট্টগ্রাম বাসিন্দারা জলাবদ্ধতা থেকে মুক্তি পাবে কী?

চট্টগ্রাম বাসিন্দারা জলাবদ্ধতা থেকে মুক্তি পাবে কী?

চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ

বন্দর নগরী চট্টগ্রাম কি কখনোও জলাবদ্ধতা হতে মুক্তি পাবে। মিলবে কি এ সমস্যার সমাধান। জলাবদ্ধতা নিরসনের প্রেক্ষাপটে সড়ক ও জনপদ, সিডিএ, কর্পোরেশন নানান বুলি ছাড়লেও কাজ কিন্তু করছে না ফলে সাধারণ মানুষেরও দূর্ভোগের শেষ নেই। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে এ পর্যন্ত আট হাজার কোটি টাকা বরাদ্ধ দিলেও কাজের অগ্রগতির দৃশ্য দেখা যায় না। নানান অজুহাতে এড়িয়ে যায় এ বিষয়ে সাংবাদিকদের জবাবে। উক্ত অধিদপ্তরগুলোর মধ্যে উভয়ের মাঝে কোন মিল নেই। ফলে জলাবদ্ধতারও নিরসনের সুফল মিলছে না চট্টগ্রামবাসীর। শুধু আগ্রাবাদ নয়, নগরীর বিভিন্ন স্থানে, বাকলিয়া, বদ্দারহাট, সিডিএ, মুহুরী পাড়া সহ আরো বহু স্থানে জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়, দোকানপাট, ঘরবাড়ি। অস্বস্থির শেষ নেই মানুষের। কর্ণফুলী নদীর পানি জোয়ারে বৃদ্ধি পাওয়ায় প্লাবিত হয় শহরের নানান স্থান। সমস্যা নিরসনের জন্য শুধুমাত্র একটি কর্তৃপক্ষই দায়ী নয় কারণ নিরসন সম্মিলিত প্রচেষ্টা ছাড়া আদও সম্ভব নয়, নালা নর্দমা পরিষ্কার, রাস্তাঘাটের উন্নয়ন ইত্যাদির কারনে। ১২টি খালের মুখে সুইট গেট ও জলাধার নির্মাণসহ বেশকিছু বড় কাজ রয়েছে প্রকল্পের আওতায়। প্রকল্প মেয়াদের অর্ধেক সময়ে কয়েকটি খালের খননকাজ শুরু হলেও বাকি কাজগুলো অনিশ্চয়তায় আছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সমন্বয়হীনতার কারণে এমন অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে বলা যায়। জলাবদ্ধতা এখন বন্দর নগরীর প্রধান সমস্যা। চট্টগ্রাম নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে শুধু সিটি করপোরেশন নয়, সরকারকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। আমরা মনে করি, সমন্বয়হীনতার কারণেই বারবার এ দুরবস্থা তৈরি হচ্ছে। ওয়াসা, সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর এবং সিটি করপোরেশনসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান কারো সঙ্গে কারো কোনো সমন্বয় নেই। তারা স্বাধীনভাবে এবং নিজেদের খেয়াল খুশিমতো কাজ করছে। এ সমন্বয়হীনতা দূর করতে না পারলে নগরীর জলাবদ্ধতা দূর করা সম্ভব হবে না।

Check Also

পোরশা সীমান্তে ভারতের অভ্যন্তরে এক বাংলাদেশী আটক

নাহিদ পোরশা (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ নওগাঁর পোরশা নিতপুর সীমান্তে ভারতের অভ্যন্তরে মনিরুল ইসলাম (২৫) নামে এক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *