Breaking News
Home / অপরাধ / কুমারখালীতে অবৈধভাবে বালি উত্তোলনে ভাঙ্গছে নদী ঘাঁমছে আতংকে নদী পারের মানুষ

কুমারখালীতে অবৈধভাবে বালি উত্তোলনে ভাঙ্গছে নদী ঘাঁমছে আতংকে নদী পারের মানুষ

কুমারখালি (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধিঃ

কুষ্টিয়ার কুমারখালি জিলাপি তলা নামক গড়াই নদী থেকে সরকারের অনুমতি ব্যাতিরেকে ডেজার দিয়ে বালী উত্তোলন করে লক্ষ লক্ষ টাকা কামিয়ে নিচ্ছে মাসুদ নামে এক বালি খেকো। জানা যায় মাসুদের এই অবৈধ বালি উত্তোলনের কারনে কিছুদিন আগে কুমারখালি উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজিবুল ইসলাম খাঁন বালি উত্তোলন এলাকা পরিদর্শন করেন ও মাসুদের ডেজারের কিছু ম্যাশিন পর্তর নষ্ট করে দেন, কিন্তু তাতে থেমে থাকেনি মাসুদের বালি উত্তোলন কাজ পূনরায় নতুন উদ্দোগে বর্ষার এই ভরা নদীতে বালি উত্তোলন করে ট্র্যাকে করে বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করছে এবং কামিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা, এতে করে নদী পাড়ের মানুষ গুলি আতংকে দিন যাপন করছে কখন যেন তাদের বাড়িঘর নদী গর্ভে বিলিন হয়ে যায়।

আজ দুপুর বারোটার সময় এলাকা পরির্শন করে যা দেখা গেল নদী থেকে ডেজার দিয়ে বালী তোলা হচ্ছে এবং ট্র্যাক এসে বালি নিয়ে যাচ্ছে এভাবে প্রতিদিন শত শত ট্র্যাক বাটা হামবা ট্রলিতে করে নদীতির থেকে বালি চলে যাচ্ছে বিভিন্ন এলাকায়। এ ব্যাপারে বালিখেকো মাসুদের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন যত। বড় শক্তিশালী শক্তি আসুক না কেন আমাকে এই বালি তোলা কেও বন্ধ করতে পারবে না। যত বারই সরকারি অফিসাররা বন্ধকরেছে ততবারই নতুন উদ্দোমে আবার চালু করেছি, সে বলে আপনারা সাংবাদিক আপনারা লেখালেখি করুন না কেন আমার কিছুই করতে পারবেন না বা বালি তোলা বন্ধ করতে পারবেন না, কেন রিপোট করে বন্ধ করতে পারবো না জানতে চাইলে মাসুদ বলে আমি হানিফ এমপিসহ বিভিন্ন নেতাদের টাকা দিই ও সরকারি বড় বড় অফিসারদের টাকা দিই। আপনারা যতবর সাংবাদিকই হন না কেন আমার কোন কিছুই করতে পারবেন না। কুমারখালী গড়াই নদীতে বালি উত্তোলনের কারনে ভাংছে নদী ও ঘামছে নদীপারের মানুষগুলি কখন যেন নদী তাদের সবকিছু ভাঙ্গনে গ্রাষ করে নেয় ফসলি জমিসহ তাদের বাসস্থান ও গৃহপালিত প্রানি গুলিকে, আতংকের মধ্যে দিন যাপন করছে গড়াই পারের মানুষ গুলি, অন্য দিকে বালি খেকো মাসুদ অবৈধ ভাবে বালি উত্তোলন করে কামিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। এলাকার নদী পাড়ের মানুষ সাংবাদিকদের জানান বালি তোলার কারনে আমরা আতংকের মধ্যে বাস করছি তাই এখনই এই বালি তোলা বন্ধ করতে সরকার পদক্ষেপ নিক তা না হলে আমরা নদী গর্ভে বিলিন হয়ে যাবো।

Check Also

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ২০টি ইউনিয়নের মনোনয়ন দাখিল

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ২০টি ইউনিয়নের মনোনয়ন পত্র দাখিল হয়েছে। বৃহস্পতিবার শান্তিপুর্ণভাবে এসব মনোনয়ন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *