Breaking News
Home / প্রচ্ছদ / সিরাজগঞ্জে মরহুম মোরাদুজ্জামানের আত্নার মাগফিরাত কামনা ও দোয়া মাহফিলের

সিরাজগঞ্জে মরহুম মোরাদুজ্জামানের আত্নার মাগফিরাত কামনা ও দোয়া মাহফিলের

নাজমুল হোসেন, সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

মজলুম জননেতা মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানির আমৃত্যু ঘনিষ্ঠ সহচর, বর্ষীয়ান প্রবীণ জননেতা সিরাজগঞ্জ সদর আসনের সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য বিএনপি প্রতিষ্ঠাকালীন কেন্দ্রীয় নেতা সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির দুঃসময়ের কাণ্ডারি জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি মরহুম মির্জা মোরাদুজ্জামানের বিদেহী আত্নার মাগফিরাত কামনা করে আজ (১৭ জুলাই) শুক্রবার বাদ জুম্মা সিরাজগঞ্জ জেলা সদরের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ সহ বিভিন্ন মসজিদে দোয়া করা হয়েছে। প্রয়াত সংসদ সদস্য মরহুম মির্জা মোরাদুজ্জামানের জ্যেষ্ঠ সন্তান সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি মির্জা মোস্তফাজামান জানান, ১৮ জুলাই তারিখ তার পিতার ২৫ তম মৃত্যু বার্ষিকী সামনে রেখে তার বিদেহী আত্নার মাগফিরাত কামনা করে বাদ জুম্মা দোয়া করা হয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, মালসাপাড়া পৌর কবরস্থান মসজিদ, রহমতগঞ্জ পৌর কবরস্থান মসজিদ, বিএল স্কুল রোড জামে মসজিদ, বিআইডব্লিউটিএ জামে মসজিদ, আমলাপাড়া জামে মসজিদ, পানি উন্নয়ন বোর্ড জামে মসজিদ, কড়িতলা জামে মসজিদ, ইবি রোড পাঁচ রাস্তা জামে মসজিদ, ইসলামিয়া সরকারি কলেজ জামে মসজিদ, ফায়ার সার্ভিস জামে মসজিদ, চৌরাস্তা জামে মসজিদ, হোসেনপুর লাল মসজিদ, হোসেনপুর দক্ষিণ জামে মসজিদ, মালসাপাড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, দিয়ার ধানগড়া জামে মসজিদ, আলিয়া মাদ্রাসা জামে মসজিদ, বিড়ালাকুঠির জামে মসজিদ, বড় বাজার জামে মসজিদ, একডালা ভুঁইয়া বাড়ি জামে মসজিদ।

উল্লেখ্য সিরাজগঞ্জ সদর জেলাধীন কাওয়াখোলা ইউনিয়নের অন্তর্গত কুড়িপাড়া গ্রামে ১৯৩৯ সালের ১১ মার্চ এক মধ্যবিত্ত কৃষক পরিবারে মির্জা মোরাদুজ্জামান জন্মগ্রহণ করেন। তিনি মওলানা ভাসানীর সাথে স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণের জন্য ভারতে চলে যান। পরবর্তীতে তিনি সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপি’র সভাপতি ও কেন্দ্রীয় বিএনপি’র তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

মির্জা মোরাদুজ্জামান ১৯৯১ সালে ৫ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিরাজগঞ্জ সদর আসন থেকে বিপুল ভোটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। জনগণের প্রতিনিধি হিসাবে দায়িত্ব গ্রহণের পর তিনি সিরাজগঞ্জে দলমত নির্বিশেষে কাজ করেন। তিনি মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাষ্টি বোর্ডের সদস্য, শ্রম ও জনশক্তি মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এবং রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সহযোগিতায় সিরাজগঞ্জ সরকারী কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে রূপান্তর, অনার্স-মাষ্টাস কোর্স চালু, বাণিজ্য ভবন, ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য হোস্টেল নির্মাণ, ভাসানী ডিগ্রী কলেজ, যমুনা ডিগ্রী কলেজ, শিমলা ডিগ্রী কলেজ, বাগবাটি কলেজ এমপিওভুক্ত করেন, শহীদ শামসুদ্দিন স্টেডিয়াম, সদর হাসপাতাল আধুনিকীকরণ, নাসিং ট্রেনিং ইন্সষ্টিটিউট প্রতিষ্ঠা, সিরাজগঞ্জ বার ভবন ও যমুনা বহুমুখী সেতু নির্মাণে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেন। তিনি ১৯৯৫ সালের ১৮ জুলাই ভোরে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন এবং সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার মালসাপাড়া পৌরকবর স্থানে তাকে দাফন করা হয়।

Check Also

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ২০টি ইউনিয়নের মনোনয়ন দাখিল

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ২০টি ইউনিয়নের মনোনয়ন পত্র দাখিল হয়েছে। বৃহস্পতিবার শান্তিপুর্ণভাবে এসব মনোনয়ন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *