Breaking News
Home / অপরাধ / খুন, ছিনতাই, চুরি বগুড়ায় বেড়েই চলেছে

খুন, ছিনতাই, চুরি বগুড়ায় বেড়েই চলেছে

 

বগুড়ায় কয়েক মাসে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। দিন দুপুরে খুন, ছিনতাই, চুরি বেড়েই চলেছে। গত ৩ মাসে ছিনতাইকারীর হাতে সেনা সদস্য ও ছাত্রসহ খুন হয়েছে ৩ জন। এছাড়া উপদলীয় কোন্দল ও বিরোধের জেরে খুন হয়েছে আরো ১০ জন। ছিনতাই ও চুরির ঘটনা ঘটেছে শতাধিক। আইন শৃঙ্খলার অবনতিতে আতংকিত সচেতন মহল। অবশ্য আইনশৃঙ্খলার অবনতির কথা স্বীকার করে তা নিয়ন্ত্রণে ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানায় পুলিশ প্রশাসন।

সবশেষ ২ ডিসেম্বর ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে খুন হয় সাব্বির হোসেন নামে এক কিশোর। নওগাঁর মহাদেবপুর থেকে চাকরির খোঁজে বগুড়া শহরে এলে জিরো পয়েন্টের কাছে আলাতাফুন্নেসা খেলার মাঠে তাকে খুন করে মোবাইলসহ টাকা-পয়সা নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এরআগে ২৮ নভেম্বর শহরতলীর সাতপাড়া এলাকায় ছিনতাইকারীর হাতে খুন হন সেনাসদস্য শফিকুল ইসলাম। তারআগে খুন হন বগুড়া আজিজুল হক কলেজের সম্মান শ্রেণীর ছাত্র আল-আমিন। এছাড়া গত তিন মাসে বগুড়ায় প্রতিপক্ষের হাতে খুন হয়েছে আরও ১০ জন। দিন দুপুরে চুরি ও ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে অনেক।

কর্মজীবী এক নারী বলেন, ‘আমি আমার অফিস থেকে দুপুর একটার দিকে ফিরছিলাম। ১৫-১৬ বছরের উঠতি বয়সের একটা ছেলে আমার হাতে থাকা স্বর্ণের ঘড়িটা টান মেরে নিয়ে দৌড়ে চলে গেলো।

এজন্য নেশার প্রকোপ বেড়ে যাওয়া এবং পুলিশের তৎপরতার অভাবকে দুষছেন এলাকার সচেতন মহল।

বগুড়া কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ফরিদ বলেন, ‘বগুড়ায় জননিরাপত্তা বিঘ্নিত হচ্ছে। সেনাসদস্য, পুলিশ সদস্য, ছাত্র, নারী কেউই রেহাই পাচ্ছে না। প্রতিনিয়ত ছিনতাইকারীর কবলে তারা কেউ না কেউ পড়ছে।

প্রতিরোধমূলক যেসকল ব্যবস্থা গ্রহণ করা দরকার তার সবগুলোই নিয়েছি। রাত্রিকালীন টহল জোরদার করা হয়েছে। প্রত্যেকটা খুনের পরেই এর সাথে জড়িতদের সনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছি। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই আসামীকে আটক করা হয়েছে।

বগুড়া পুলিশের দেয়া তথ্যমতে, গত এক বছরে জমিজমা, পারিবারিক ও উপদলীয় কোন্দল এবং ছিনতাইকারীর হাতে খুন হয়েছেন ৫৪ জন। ছিনতাই, চুরির ঘটনায় ঘটেছে ১৩০টি।

Check Also

ধামরাইয়ে ৩শত পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান

মোঃ বুলবুল খান পলাশ, ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধিঃ-ঢাকার ধামরাইয়ে নিজ ব্যক্তিগত তহবিল থেকে করোনাকালীন সময়ে পৌর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *