Breaking News
Home / অপরাধ / আইন ও আদালত / ত্রাণের ব্যাগে ইচ্ছেমত ছবি নয় রাজশাহী জেলা প্রশাসক

ত্রাণের ব্যাগে ইচ্ছেমত ছবি নয় রাজশাহী জেলা প্রশাসক

সুজন রাজশাহী প্রতিনিধি:

করোনা ভাইরাস কারনে বর্তমান পরিস্থিতিতে বিভিন্নস্থানে কর্মহীন, অসহায়দের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করা হচ্ছে। এসব ত্রাণ সামগ্রী বিতরণে মন্ত্রনালয়ের অনুমোদন ব্যাতিত কোন ছবি, বিশেষ লিখা সম্বলিত প্যাকেট/বস্তা ব্যবহার না করার জন্য বলেছেন রাজশাহীর জেলা প্রসাশক।
এ সংক্রান্ত এক নির্দেশনায় বলা হয়েছে, মুজিববর্ষের লোগো ব্যবহার সম্পর্কিত নির্দেশনা অনুসরণ করার জন্য এবং প্রধানমন্ত্রীর ছবি ব্যবহারের ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অনুমতি গ্রহন করতে হবে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের বরাদ্দকৃত চাউলের ব্যাগে কারো ব্যক্তিগত ছবি ব্যবহার করার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের অনুমতি নিতে হবে। করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় সকল প্রকার ত্রাণ সামগ্রী কোন গণজমায়েত না করে ঘরে ঘরে পৌছানোর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
উল্লেখ্য, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের চাল ও অন্যান্য ত্রাণ সামগ্রী তানোর উপজেলায় বিতরণের ক্ষত্রে মুজিববর্ষের লোগো, প্রধানমন্ত্রীর ছোট ছবি উপরে রেখে ব্যাগের মাঝখানে গোদাগাড়ী-তানোর আসনের সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরীর পোট্রেইট সাইজের ছবি ও স্লোগান সম্বলিত ব্যাগ ব্যবহার করা হয় মর্মে গত ৫ এপ্রিল একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ প্রকাশিত হয়। এরই প্রেক্ষিতে রাজশাহীর জেলা প্রশাসক হামিদুল হক গত ৬ এপ্রিল এ সংক্রান্ত নির্দেশনা প্রদান করেন।
তবে এই নির্দেশনা না মেনে মঙ্গলবারও তানোরের তালন্দ, পাঁচন্দর, বাঁধাইড় ও কলমা ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) মানুষকে জমায়েত করে ত্রাণ বিতরণ করা হয়। এসব অনুষ্ঠানে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন। ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশীদ ময়নাও। এসব স্থান থেকে বিতরণ করা ত্রাণের ব্যাগেও এমপি ফারুকের ছবি ছিলো। অথচ ছবি ব্যবহারের কোনো অনুমতিই নেয়নি কেউ।
এ নিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যেও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এমপি ফারুক চৌধুরী নিজের ছবি সম্বলিত ব্যাগে ত্রাণ বিতরণ করছেন এমন ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করে জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সামাউন ইসলাম লিখেছেন, কার খাদ্যসামগ্রী কে দেয়। সরকারের দেওয়া খাদ্য বন্টন হয় নিজের নামে।
তানোরের ইউএনও সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, ত্রাণের ব্যাগে ছবি ব্যবহারের ক্ষেত্রে নির্দেশনা দিয়ে জেলা প্রশাসক যে চিঠি দিয়েছেন সেটি তিনি পেয়েছেন। এরপর সব ইউপির চেয়ারম্যান ও পৌরসভার মেয়রদের বলা হয়েছে তারা যেন ছবি সম্বলিত কোনো ব্যাগ ব্যবহার না করেন। কিন্তু মঙ্গলবারও এসব ব্যাগ ব্যবহারের বিষয়টি তার জানা নেই।
জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক বলেন, অনুমোদন ছাড়া কেউ ব্যক্তিগত ছবি ব্যবহার করতে পারবেন না। সেটি চিঠি দিয়েই সবাইকে জানানো হয়েছে। এরপরেও এই ব্যাগ ব্যবহার হয়েছে কি না তা তার জানা নেই। বিষয়টি তিনি খতিয়ে দেখবেন।

Check Also

ঠাকুরগাঁও জেলার শ্রেষ্ঠ গরু বারাকাত ওজন ১১শ কেজি মূল্য ১৩ লাখ ক্রেতা খুজচ্ছেন খামারি জিল্লুর

গীতি গমন চন্দ্র রায় গীতি,স্টাফ রিপোর্টার ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে ৫ নং সৈয়দপুর ইউনিয়নের থুমনিয়া (সাহাপাড়া)গ্রামের রিয়াজুল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *