Breaking News
Home / প্রচ্ছদ / ৫৪ নং ওয়ার্ডে মশার উপদ্রুব, ঘুম হারাম জনসাধারণের

৫৪ নং ওয়ার্ডে মশার উপদ্রুব, ঘুম হারাম জনসাধারণের

ঢাকা প্রতিনিধি: মশার উৎপাতে অতিষ্ঠ পোস্তগোলা, আলমবাগ, খন্দকার রোডের মুন্সীবাড়ি এলাকার বাসিন্দারা। মশা নিধনের কোন পদক্ষেপ না নেয়ার কারণে দিন দিন বেড়েই চলেছে মশার উৎপাত। এতে ডেঙ্গুসহ মশাবাহিত নানা রোগব্যাধিতে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছেন পোস্তগোলা ও জুরাইন বাসী।

স্থানীয়দের অভিযোগ, সম্প্রতি মশার উৎপাতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে জনজীবন। বাসা-বাড়ি, শিক্ষা ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, অফিসসহ বিভিন্ন স্থানে মশার আক্রমণ থেকে রক্ষা পাচ্ছেন না কেউই। দিনেও মশার কয়েল ও স্প্রে ব্যবহার করতে হয়। মশার কয়েল, স্প্রে সব কিছুই মশার কাছে হার মানছে।

মুন্সীবাড়ি মহল্লার নালা নর্দমায় অপরিষ্কার পানি জমে থাকা, নিয়মিত পরিষ্কার না করা এবং যত্রতত্র ময়লা আবর্জনা ফেলার কারণে মশা বৃদ্ধি পেয়েছে বলে মনে করছেন এলাকাবাসী। এছাড়া পোস্তগোলার আইজি গেট, করিমুল্লাহ বাগ, কবরস্থানের গলি বিবির বাগিচা আলমবাগ সহ প্রায় সব এলাকায় সড়কের পাশের অধিকাংশ স্থানে ঔষধ না ছিটানোর কারনে মশার বিস্তার চরম আকার ধারণ করেছে বলে মনে করেন তারা।

পোস্তগোলার বাজার গলির ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী মোতালেব হোসেন জানান, হঠাৎ করেই মশার উপদ্রব বৃদ্ধি পাওয়ায় পোস্তগোলাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। নালা-নর্দমাগুলোতে মশক নিধন স্প্রে না করায় এ সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। নিয়মিত মশা নিধনকরী ওষধ প্রয়োগ করা হলে হয়তো পোস্তগোলাবাসীর এ দুর্ভোগ পোহাতে হতো না।

জুরাইনের আলমবাগ এলাকার গৃহিনী জান্নাত খাতুন বলেন, মশার বংশ বিস্তার রোধে ওষধ ছিটানোর কোন খবর নেই। সম্প্রতি এ অঞ্চলে মশার উপদ্রব বৃদ্ধি পেলেও সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না।

এ বিষয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৫৪ নং ওয়ার্ডের পরিছন্নতা সুপারভাইজারের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তা সম্ভব হয়নি।

Check Also

ঠাকুরগাঁও জেলার শ্রেষ্ঠ গরু বারাকাত ওজন ১১শ কেজি মূল্য ১৩ লাখ ক্রেতা খুজচ্ছেন খামারি জিল্লুর

গীতি গমন চন্দ্র রায় গীতি,স্টাফ রিপোর্টার ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে ৫ নং সৈয়দপুর ইউনিয়নের থুমনিয়া (সাহাপাড়া)গ্রামের রিয়াজুল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *