Breaking News
Home / অপরাধ / দুলারহাট থানায় ভুয়া এলইডি বাল্ব তৈরির কারখানার ছড়াছড়ি

দুলারহাট থানায় ভুয়া এলইডি বাল্ব তৈরির কারখানার ছড়াছড়ি

দুলারহাট সংবাদদাতাঃ
ভোলার চরফ্যাশন দুলারহাট থানাস্থ মুন্সিরহাট বাজারে গড়ে উঠেছে অনুমোদন বিহীন এলইডি বাল্বের কারখানা।কোনো ধরনের অনুমতি ছাড়াই পেকেটের গায়ে ভুয়া ও আকর্ষণীয় নামে এলইডি বাল্ব বাজারজাত করছেন কোঃ মালিক মোঃ সালাউদ্দিন। পণ্য উৎপাদন বাজারজাত করনের ক্ষেত্রে মান নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বিএসটিআই’র অনুমোদন বাধ্যতামুলক।কিন্তু অনুমোদন ছাড়াই দীর্ঘদিন যাবৎ তৈরি করে বাজারজাত করে আসছে লাইসেন্স বিহীন কোম্পানির আকাশ ব্রান্ডের নামে এলইডি বাল্ব।

বর্তমান বাজারে দেখা যায় প্রায় ৯০ শতাংশ পর্যন্ত বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী পণ্য এলইডি বাল্ব। একটি এলইডি বাতির স্থায়িত্ব থাকে ৫০ হাজার ঘণ্টারও বেশি, যা সাধারণ বাতির তুলনায় কয়েকগুণ বেশি স্থায়িত্বশীল।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, নিম্ম মানের এসব পন্য বিক্রি করা সালাউদ্দিন পাশাপাশি পল্লীবিদ্যুৎ এর দালাল নামে ও পরিচিত। লাইসেন্সবিহীন কোঃ মালিক সালাউদ্দিন এলাকার সহজ-সরল মানুষের কাজ থেকে পল্লি বিদ্যুৎতের লাইন দেওয়ার নামে ঘর প্রতি চার হাজার থেকে পাঁচ হাজার টাকা করে হাতিয়ে নিয়েছে ।এমনকি বিদ্যুৎতের মিটার দেওয়ার নামে ঘর প্রতি ৪ হাজার টাকা নিয়ে অনেকের মিটার না দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এবং নিজের তৈরি বাল্ব না কিনলে ঘর ওয়ারিং এর ক্লিয়ারেন্স দিচ্ছেননা পল্লীবিদ্যুৎতের দালাল সালাউদ্দিন।

মিটার না দেওয়া সম্পর্কে রফিজল নামের এক ভুক্তভোগী জানান, রফিজল এবং দুইভাই মিলে দীর্ঘদিন আগে মিটার বাবদ ১২ হাজার টাকা দালাল সালাউদ্দিনের কাছে জমা দেই। জমা দেওয়ার পর আজও মিটার পায়নি।মিটারের কথা বললে সালাউদ্দিন নানান ধরনের অজুহাত দেখায়।

অবৈধ লাইসেন্স সম্পর্কে সালাউদ্দিনের কাছ মুঠোফোনে জানতে চাইলে সে জানান, আমি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে এক’শ টাকার ট্রেড লাইসেন্স আট’শ টাকা দিয়ে ক্রয় করেছি। নীলকমল ইউনিয়ন পরিষদ সচিব আমাকে বলেছেন এই ট্রেড লাইসেন্স দিয়েই এলইডি বাল্ব তৈরি এবং বাজার করতে পারবো।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি এলইডি বাল্ব তৈরি এবং বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠানের মালিক বলেন, আমি পণ্য তৈরি করার জন্য বানিজ্য মন্ত্রনালয়, শিল্প মন্ত্রনালয়, পরিবেশ মন্ত্রনালয়ের ছাড়পত্র এবং বিএসটিআই’র মাধ্যমে অনুমোদন করেছি। এবং উন্নতমানের এলইডি বাল্ব যাচাইয়ের মাধ্যমে গ্যারান্টি সহকারে বাজারজাত করে থাকি। কিন্তু সে ইউনিয়ন পরিষদের ট্রেড লাইসেন্স দিয়ে কিভাবে পণ্য তৈরি করে।এবং সে এই মানহীন পণ্য বেশি দামে গ্যারান্টিবিহীন বাজারজাত করে।এতে দেখা যায় একদিকে যেমন ক্রেতাদের ঠকাচ্ছে, অন্যদিকে ক্রেতারা এলইডি বাল্বের প্রতি আস্থা ও হারাচ্ছে।

Check Also

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে অগ্নিকান্ডে ১টি বাড়ি ভস্মীভূত

গীতি গমন চন্দ্র রায় গীতি, স্টাফ রিপোর্টার: ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ গতকাল রাত ১০/১১ ঘটিকার সময় হঠাৎ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *