Breaking News
Home / অপরাধ / জুরাইনে দিহান ফার্মাসিটিক্যালস নামে ভেজাল ওষুধ কারখানার সন্ধান

জুরাইনে দিহান ফার্মাসিটিক্যালস নামে ভেজাল ওষুধ কারখানার সন্ধান

জুরাইন সংবাদাতা: খোদ রাজধানীর জুরাইনের বাগানবাড়িতে অনুমোদনহীন ভেজাল ঔষধ কারখানার সন্ধান পাওয়া গেছে। রাজধানী ঢাকার কদমতলী থানার অন্তর্গত জুরাইনের বাগানবাড়ি এলাকার অন্তর্গত ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় গড়ে উঠেছে দিহান ফার্মাসিটিক্যালস (আয়ুর্বেদিক) নামে ভেজাল ঔষধ তৈরির কারখানা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, জুরাইন বাগান বাড়িতে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় সরু রাস্তার পাশে ছয়তলা সুউচ্চ ভবনের নিচতলা ও দোতলার দুটি ফ্লোর ব্যবহার করে গড়ে উঠেছে সাইনবোর্ড বিহীন আয়ুর্বেদিক ঔষধ কারখানাটি। বাহির থেকে দেখে বোঝার কোন উপায় নেই এটি জীবনরক্ষাকারী একটি ঔষধ তৈরির কারখানা। ভিতরে প্রবেশ করে দেখা যায় অপরিষ্কার অপরিছন্ন অবস্থায় হাতের স্পর্শে তৈরী করা হচ্ছে ঔষধ। কারখানার অপরিছ্ন্ন ফ্লোরে যত্রতত্রভাবে ফেলা রাখা হয়েছে ঔষধ তৈরীর বিভিন্ন উপকরণ। খুঁজে পাওয়া যায়নি কোন ফার্মাসিষ্ট। কোন কর্মকর্তা বা কর্মচারীর হাতে গ্লাভস ও মুখে মাক্স ব্যবহার করতে দেখা যায়নি।

অনুসন্ধানে জানা যায়, এ কারখানায় তৈরী করা যাবতীয় ভেজাল ঔষধ ঢাকার পাইকারী ঔষধের বাজার বাবু বাজারের মিটফোর্ডে বিক্রি করা হয় । অধিক লাভের আশায় দোকানীরা কিনে নেয় এসব ভেজাল ঔষধ। মিটফোর্ডের দোকানীদের মাধ্যমে এসব ভেজাল ঔষধ পরবর্তিতে ছড়িয়ে দেয়া হয় পুরো দেশের গ্রামগঞ্জের খুঁচরা বাজারে।

দিহান ফার্মাসিটিক্যালস লিমিটেড নামের ভেজাল ঐ ঔষধ কারখানার মালিক আবুল হোসেন লিটন নামের এক ব্যক্তি। এ প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করতে তাকে সহযোগিতা করে তারই পরিবারের সদস্যরা। তারা দীর্ঘ দিন যাবত প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে কারখানাটিতে যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন-মিনারেল ট্যাবলেট, কোল্ড-কফ নামক কাঁশির সিরাপসহ বিভিন্ন প্রকার ভেজাল ঔষধ তৈরী করছে।

কারখানাটির অবস্থান জুরাইন রেলগেট মেইন রাস্তা হইতে অনেকটা ভিতরে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় হওয়ায় এখন পর্যন্ত প্রশাসনের নজরদারির বাইরেই রয়ে গেছে।

প্রতিষ্ঠানটির কর্মরত ম্যানেজার লায়লা বেগম (৩০) সাংবাদিকদের উপস্থিতি টের পেয়ে কিছু না বলে তারাহুরো করে কারখানার মেশিন বন্ধ করে দেন। ঔষধ তৈরী করার বিষয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদনের বিষয়ে জানতে চাইলে সে এব্যাপারে কিছু জানেন না বলে মালিক পক্ষের সাথে কথা বলার জন্য অনুরোধ করেন।

কারখানায় কর্মরত ইউনিফর্ম বিহীন নোংরা অপরিছ্ন্ন পোশাক পড়া আরো কয়েক জন মহিলা শ্রমিকের দেখা মিলে। তারা জানান, কারখানার মালিক তাদের দৈনিক মজুরি প্রদান করেন তাই তারা কাজ করেন।

Check Also

নওগাঁর পোরশায় লকডাউনের পঞ্চম দিনে কঠোর অবস্থানে উপজেলা প্রশাসন

নাহিদ পোরশা, (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ নওগাঁর পোরশায় লকডাউনের পঞ্চম দিনে জন সচেতনা বাড়াতে কঠোর অবস্থান নিয়েছে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *