Breaking News
Home / প্রচ্ছদ / নিউজ আপডেট / রেঙ্গা মাদরাসার শতবর্ষপূর্তি: উৎসবের অপেক্ষায় সিলেট অঞ্চল

রেঙ্গা মাদরাসার শতবর্ষপূর্তি: উৎসবের অপেক্ষায় সিলেট অঞ্চল

রেঙ্গা মাদরাসার শতবর্ষপূর্তি: উৎসবের অপেক্ষায় সিলেট অঞ্চল

সিলেটের শীর্ষস্থানীয় ও প্রাচীনতম দীনি বিদ্যাপীঠ জামিয়া তাওয়াক্কুলিয়া রেঙ্গা প্রতিষ্ঠার ১০০ বছর পার করছে এ বছর। প্রতিষ্ঠানটির শতবর্ষপূর্তি উপলক্ষে আগামী ২৫, ২৬ ও ২৭ ডিসেম্বর বিপুল আয়োজনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে শতবার্ষিকী উদযাপন ও আন্তর্জাতিক ইসলামি মহাসম্মেলন। তিনদিন ব্যাপী এ মহাসম্মেলনকে ঘিরে প্রস্তুতি চলছে গত কয়েক মাস ধরেই। ফারেগিন ছাত্রদের উদ্যোগে দফায় দফায় অনুষ্ঠিত হয়েছে ব্যাচ-ভিত্তিক ফুজালা সম্মেলন।

এখন চলছে চূড়ান্ত প্রস্তুতির কাজ। সিলেটের ধর্মীয় অঙ্গনে এ উপলক্ষে বিপুল সাড়া পড়েছে। উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে জামিয়ার আপামর তালেবে ইলম, ফারেগিন ওলামায়ে কেরাম এবং স্থানীয় সাধারণ মানুষের মধ্যেও।

দেশ ও দেশের বাইরের শীর্ষস্থানীয় ও প্রখ্যাত সব ওলামা-মাশায়েখ তিনদিন ব্যাপী এ মহাসম্মেলনে অংশগ্রহণের কথা রয়েছে। মহাসম্মেলন থেকে দস্তারে ফজিলত (সম্মাননা সূচক পাগড়ি) গ্রহণ করবেন জামিয়া থেকে বিভিন্ন সময়ে দাওরায়ে হাদিস ও হিফজুল কুরআন সম্পন্নকারী সাড়ে তিন সহস্রাধিক হাফেজ-আলেম। ফাতেহ টুয়েন্টি ফোরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সম্মেলনের মিডিয়া সমন্বয় কমিটির সদস্য ও জামিয়া তওয়াক্কুলিয়ার ফাজিল ইবাদ বিন সিদ্দিক।

তিনি জানান, বিশাল এ আয়োজন সম্পন্ন করতে বছর খানেক আগে গঠন করা হয়েছে সম্মেলন বাস্তবায়ন কমিটি। জামিয়ার মুহতামিম মাওলানা মুহিউল ইসলাম বুরহানের নেতৃত্বে গঠিত এ কমিটির অধীনে সম্মেলনের বিভিন্ন কাজকে ভাগ করে গঠন করা হয়েছে আরও ১৬টি উপকমিটি। জামিয়ার উসতাদ এবং প্রাক্তন ছাত্রদের সমন্বয়ে কমিটিগুলো গঠিত হয়েছে। সম্মেলনের ব্যয় সংকুলানের জরন্য ৩ কোটি টাকার বাজেট ধরা হয়েছে। জামিয়ার প্রাক্তন ছাত্রবৃন্দ, শুভাকাঙ্ক্ষী, প্রবাসী ও এলাকাবাসীর স্বতস্ফুর্ত ও আন্তরিক সহযোগিতায় বাজেটটি পূর্ণ করা হচ্ছে।

ইবাদ বিন সিদ্দিক আরও জানান, সিলেটের প্রতিটা জেলায়ই মাস দুয়েক আগ থেকে সম্মেলনের প্রচারণার কাজ চলছে। ফলে, মাদরাসার ছাত্র, আলেম ও ধর্মীয় সমাজে সম্মেলনকে ঘিরে আলাদা একটা আগ্রহ ও আমেজের সৃষ্টি হয়েছে। বিভিন্ন মাদরাসা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান স্বতস্ফূর্তভাবে অংশ নিচ্ছে প্রচারণা ও ব্যবস্থাপনার কাজে। এর মধ্যে জামিয়া মাদানিয়া আঙ্গুরা-মুহাম্মদপুর, জামিয়া দারুল কুরআন সিলেট, জামিয়া ইসলামিয়া হোসাইনিয়া ঝেরঝেরিপাড়া, জামিয়া ইসলামিয়া শামীমাবাদ, জামিয়া হেদায়েতুল ইসলাম, মারকাযুল উলুম মুহাম্মদপুর, জামিয়া ইসলামিয়া বারইগ্রাম, জামিয়া মুহাম্মদিয়া সিলেট, জামিয়া দারুল হাদীস জাউয়া, জামিয়া মাদানিয়া সুনামগঞ্জ ও আঞ্জুমানে তালিমুল কুরআন বাংলাদেশের নাম বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। এই প্রতিষ্ঠানগুলো স্বউদ্যোগে সম্মেলন বাস্তবায়নের কাজে অংশগ্রহণ করেছে।

এ ছাড়া সিলেটের চার জেলার প্রায় প্রতিটি এলাকায়ই ছড়িয়ে-ছিটিয়ে আছেন জামিয়া রেঙ্গার ফারেগিন ওলামায়ে কেরাম। তাঁরাও যার যার এলাকায় নিজস্ব উদ্যোগে সম্মেলনের প্রচারণার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানান ইবাদ বিন সিদ্দিক।

ইতিমধ্যে জামিয়া-প্রাঙ্গণে ৩৬০ বাই ২৪০ ফুট আয়তনের প্যান্ডেল নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। সম্মেলনে আগতদের জন্য করা হচ্ছে বিশেষ ব্যবস্থা। কর্তৃপক্ষ আশা করছে লক্ষাধিক মুসল্লির সমাগম ঘটবে এ মহাসম্মেলনে।

উল্লেখ্য, সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলা ও মোগলাবাজার থানার অন্তর্গত এবং বিভাগীয় শহর সিলেট থেকে ১৩ কিলোমিটার দূরত্বে রেলপথ ও বিশ্বরোড সংলগ্ন ঐতিহ্যবাহী রেঙ্গা এলাকায় জামিয়া তাওয়াক্কুলিয়ার অবস্থান।

বিংশ শতাব্দীর শুরুর দিকে দেওবন্দের চিন্তাধারা যখন ভারত উপমহাদেশে ক্রমশ বিকাশ লাভ করছিল, সেই সময়টাতেই, ১৯১৯ খ্রিষ্টাব্দে, দেওবন্দের অনুসারী আলেম মাওলানা আরকান আলি রহমতুল্লাহ আলায়হি এলাকাবাসীর সহযোগিতায় প্রতিষ্ঠা করেছিলেন মাদরাসাটি। প্রতিষ্ঠাকালীন মুহতামিম তিনিই ছিলেন। পরবর্তীতে মুহতামিমের দায়িত্ব পান শায়খুল ইসলাম হোসাইন আহমদ মাদানি রহ.-এর খলিফা, রেঙ্গা এলাকারই কৃতি সন্তান হজরত বদরুল আলম শায়খে রেঙ্গা রহমতুল্লাহ আলায়হি।

১৯৭৭-৭৮ খ্রিষ্টাব্দের দিকে মাদরাসাটি দাওরায়ে হাদিস মাদরাসায় রূপান্তরিত হয় এবং হাজার হাজার আলেমে দীন এখান থেকে শিক্ষা সমাপণ করে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্নভাবে দীনের খেদমত আঞ্জাম দিয়ে যাচ্ছেন। সিলেট অঞ্চলে প্রাচীনতম ও ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে জামেয়া তাওয়াক্কুলিয়া রেঙ্গা ব্যাপকভাবে সমাদৃত।

Check Also

সরকারী প্রতিষ্ঠানের গাছ কর্তন- অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে সাংবাদিকদের ওপর ক্ষেপলেন সহকারী শিক্ষক

স্টাফ রিপোটার।। নীলফামারী।। নীলফামারীর জলঢাকায় তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে সাংবাদিকদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ ও স্থানীয় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *