Breaking News
Home / অপরাধ / বৃদ্ধ কে আটক করে জোর পূর্বক স্ট্যাম্পে দস্তগত নেওয়াই লক্ষ্মীপুর পুলিশ সুপারের নিকট অভিযোগ

বৃদ্ধ কে আটক করে জোর পূর্বক স্ট্যাম্পে দস্তগত নেওয়াই লক্ষ্মীপুর পুলিশ সুপারের নিকট অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টারঃ
বৃদ্ধবয়সে একজন পিতা-মাতার প্রয়োজন হয় ছেলে সন্তানের সহযোগিতা। কিন্তু আবুল কালামের ছেলে সন্তান না থাকার কারণে সমাজ ব্যবস্থার নানা প্রতিযোগিতাই তার পক্ষে তেমন কোনো মানুষ কিংবা সমর্থন দেখা যায়নি। এমনি ঘটনার বিবরণ দেয় বৃদ্ধ আবুল কালাম (৬০)। এসময় কান্না জড়িত কন্ঠে আবুল কালাম জানান, আমার চার মেয়ে । ছেলে সন্তান নেই । তাই আমি সমাজের জোর -জুলুমবাজ অত্যাচারী, প্রতারক, বিশ্বাস ভঙ্গকারী আবুল কালাম মেম্বার এর ধারা হতাশাগ্রস্থ। আমি বিশ্বাস করি আইন সবার জন্য সমান। জেলা পুলিশ সুপার আমার অভিযোগ আমলে নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে এমন টাই আশা করে কৃষক আবুল কালাম।
লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জ বাজারে নাইয়ুরী ফ্যাশন এন্ড ইলেকট্রনিক্স দোকানে এক বৃদ্ধ কে জোর পূর্বক স্ট্যাম্পে দস্তখত নেওয়াই জেলা পুলিশ সুপারের নিকট অভিযোগ দায়ের করেন ভূক্তভোগী আবুল কালাম । অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ভবানীগঞ্জ বাজারের নাইয়ুরী ফ্যাশন এন্ড ইলেকট্রনিক্স দোকানে আটক করে আব্দুল লতিব এর পুত্র আবুল কালাম এর কাছ থেকে জোর পূর্বক স্ট্যাম্পে দস্তখত নেই ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নের কামালপুর গ্রামের আবুল কালাম মেম্বার,সোহেল,খোরশেদসহ কয়েকজন মাতাব্বর। আজ ৭ ই নভেম্বর দুপুরে জেলা পুলিশ সুপারের নিকট বৃদ্ধ আবুল কালাম অভিযোগ দায়ের করেন। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,আবুল কালাম এর মেয়ের জামাতার সাথে আবুল কালাম মেম্বার এর ব্যবসায়ীক সু-সম্পর্ক গড়ে উঠে।
তারই আলোকে ফসি আলম এর পুত্র টিপু ৪০,হাজার টাকা ব্যবসার উপর নেই। গত কয়েকবছর ফসি আলমের পুত্র টিপু, মেম্বার সাহেবের সুদ ও ব্যবসার টাকা পরিশোধ করে।
অবশিষ্ট৩০,হাজার টাকা আগামী কয়েকমাস পর পরিশোধ করবে বলে স্থানীয় সমাজসেবক ও মেম্বার সাখাওয়াত হোসেন সমাধান করে দেয়। কিন্তু কে শুনে কার সমাধান! একই দিন রাতে ভবানীগঞ্জ বাজারে খোরশেদ এর নেতৃত্বে কয়েকজন মিলে আবুল কালাম এর কাছ থেকে নন জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে দস্তখত নেই। এসময় তারা আবুল কালাম এর জমির দলিলের নকল ও জাতীয় পরিচয় পত্রের কপি খোজাখুজি করে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।
এ বিষয়ে বাজারের ব্যবসায়ী ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতাদের সাথে আলাপ করলে তারা জানান, খোরশেদ এলাকার অসহায় মানুষদের কাছে এক আতঙ্কের নাম। সে- কারণে বিনা কারণে সাধারণ মানুষদেরকে কু-বুদ্ধি দিয়ে কয়েকজন নামধারী লোভী অসৎ কর্মকর্তার সাথে জোক-সাজোগে নিরিহ মানুষদেরকে হয়রানি করে আসছে । ইতিপূর্বে তার বিরুদ্ধে কোর্ট আমলী আদালতে ,পুলিশ সুপার,থানাই একাধিক অভিযোগ রয়েছে বলে জানা গেছে। কয়েকদিন পূর্বে পল্লী বিদ্যুাতের কয়েকজন অফিসারকে বেদড়ক মারধর করে। এ নিয়ে থানাই মামলা করা হয়েছে। যেখানে আওয়ামীগের রাজনৈতিক নেতারা সাধারণ মানুষদেরকে নানা ভাবে সহযোগিতা করে,সমর্থন আদায়ের জন্য রাতদিন পরিশ্রম করে। অপরদিকে খোরশেদ এর মত নামধারী হাইব্রিড নেতার কারণে দিন দিন আওয়ামীলীগের সমর্থন নষ্ট হচ্ছে বলে আওয়ামীলীগের বিপ্লবী সমর্থন সূত্রে জানা গেছে। এ নিয়ে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক শিহাবুর রহমান শিহাব জানান, খোরশেদ আমাদের ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কোনো দায়িত্ব কিংবা সদস্য নই। সে যদি আওয়ামীলীগের নাম ব্যবহার করে,সাধারণ মানুষদেরকে হয়রানি করে তাহলে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর শুদ্ধি অভিযানে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে এ ত্যাগী নেতা জানান।সদর পূর্ব থানা যুবলীগের যুগ্ন আহ্বায়ক জসিম উদ্দিন জানান, যুবলীগের নাম ব্যবহার করে কেউ কোনো অপরাধ করলে তার বিরুদ্ধে প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জোরদাবী জানান এ নেতা।
ৃঘটনাটির বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার আইনগত ব্যবস্থ নিয়ে আইন সবার জন্য সমান তা বাস্তবায়ন করবে এমনটাই আশা করেন ভবানীগঞ্জ ইউনয়ন বাসী।

Check Also

দিনাজপুরে নারী দিবসে নারী বাইকারদের মটরসাইকেল র‌্যালী

মোঃ মঈন উদ্দীন চিশতী, দিনাজপুরঃ বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশেও যথাযোগ্য মর্যাদায় নারী দিবস উদযাপন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *