Breaking News
Home / প্রচ্ছদ / নিউজ আপডেট / এমপিও হলো বড়তাকিয়া যাহেদিয়া দাখিল মাদ্রাসা

এমপিও হলো বড়তাকিয়া যাহেদিয়া দাখিল মাদ্রাসা

এম জাবেদ হোসাইন ( মীরসরাই প্রতিনিধি)
নতুন করে এমপিওভুক্ত (মান্থলি পেমেন্ট অর্ডার) করা হলো ২৭৩০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। ২৩ অক্টোবর বুধবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির ঘোষণা দেন। এর মধ্য দিয়ে বহু শিক্ষক-কর্মচারীর দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা পূরণ হলো। একই সাথে নতুন এমপিও হলো মীরসরাই উপজেলার ১২ খৈয়াছড়া ইউনিয়নে অবস্থিত বার আউলিয়ার সর্দার হযরত জাহেদ শাহ (রা) নাম করনে বড়তাকিয়া যাহেদিয়া দাখিল মাদ্রাসা ,একই সাথে অত্র ইউনিয়নে আরো দুটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিও হলো প্রতিষ্ঠান দুটি হল খৈয়াছড়া উচ্চ বিদ্যালয় ভোকেশনাল শাখা ও বজলুল ছোবাহান চেীধুরী উচ্চ বিদ্যালয় উক্ত প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারী সকলে এই আনন্দ সংবাদে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও চট্টগ্রাম মীরসরাই-১ এর সংসদ সদস্য ইনঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি কে কৃতজ্ঞতা ও মোবারকবাদ জানান।
উক্ত মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা করার জন্য জমি দান করেন আলহাজ্ব আব্দুল হাকিম ,হারুন উর রশিদ, শামিউল আজম,সগির হোসেন,ফরিদ আহম্মদ,সহ জাহাঙ্গীর আলম,নুরল আলম, আব্দুল মন্নান,আবুআলম.নুরুল হক গং। সকলের প্রচেষ্টায় ৮ অক্টোবর ১৯৯৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠাকালের এক বছর পরে দাখিল মাদ্রাসা হিসাবে স্বীকৃতি পেয়ে ২০০১ সালে ১১ জন শিক্ষার্থী দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে সে ধারাবাহিকতা ধরে রেখে ২০১৯ সালে শিক্ষার্থীরা দাখিল পরীক্ষায় শত ভাগ পাশ করে প্রতিষ্ঠানটি গৌরব অর্জন করে। এবং ইবতেদায়ী ও জুনিয়র দাখিল স্কলারশিপ বৃত্তি পরীক্ষায় চট্টগ্রাম জেলার ১ম স্থান অর্জন করে । বর্তমানে পনের জন শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়ে পাঠ্য কার্যক্রম চলতেছে। এবং অত্র মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটি বড়তাকিয়া জামে মসজিদ ,বড়তাকিয়া যাহেদিয়া নূরানী কিন্ডারগার্ডেন হেফজো ও এতিম খানা পরিচালনা করে আসতেছে নূরানী কিন্ডারগার্ডেনে ৬০০ শিক্ষার্থী হেফজো ও এতিম খানা ২৭ জন ক্ষুদে হাফেজ রয়েছে।
মাদ্রাসার সুপার মাওলানা আলাউদ্দিন জানান সেই ১৯৯৯ সাল থেকে সুপার এর দায়ীত্ব পালন করে আসতেছি প্রায় দুই যুগ এই মাদ্রাসার সাথে জড়িত নিজের সেরাটা দিয়ে নিরলস ভাবে কাজ করার চেষ্টা করি সব সময়,আমাদের রয়েছে দক্ষ শিক্ষক শিক্ষিকা ও কর্মচারী । অতি জরুরী হয়ে পড়েছে মাদ্রাসার ভবনের, ঝুকিপূর্ন ভবন নরবড়ে আসবাবপত্রে চলতেছে ছাত্র-ছাত্রীদের পাঠ কার্যক্রম,এবং কি! এস এমলি করানোর জন্য নাই প্রয়োজনীয় মাঠ মাদ্রাসার সামনের জায়গাটি ফেলে আমরা শিক্ষার্থীদের পিটি করার সুযোগ হতো । ভবিষ্যত পরিকল্পনা বিজ্ঞান শাখা , আলাদা বালিকা শাখা , ছাত্র-ছাত্রীদের টিফিন এর জন্য ক্যান্টিনের সুব্যবস্থা ।
মাদ্রাসার সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল হাকিম বলেন প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে নিরলস শ্রম দিয়ে আসতেছি মাদ্রাসাটি কে দাঁড় করানোর জন্য অনেক বাধা বিপত্তি অতিক্রম করতে হয়েছে মাদ্রাসা পরিচালনা ক্ষেত্রে এখনো অনেক কাজ বাকি রয়েছে আপনাদের সকলের সহযোগিতা কামনা করি।

Check Also

দিনাজপুরে “পড়া লেখা কোচিং সেন্টারকে” সরকারী নির্দেশনা অমান্য ১ লক্ষ টাকা জরিমানা

মোঃ মঈন উদ্দীন চিশতী, দিনাজপুরঃ সরকারী নির্দেশনা অমান্য করে দিনাজপুর শহরের বড়বন্দর এলাকার স্বাস্থ্য বিধি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *