Home / ক্যাম্পাস / বিদেশ গিয়ে ফিরছেন না খুবি’র শিক্ষকরা, পাওনা সাড়ে তিন কোটি টাকা

বিদেশ গিয়ে ফিরছেন না খুবি’র শিক্ষকরা, পাওনা সাড়ে তিন কোটি টাকা

অনলাইন ডেস্ক

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে (খুবি) যোগদান করার কয়েক বছর পরই বেশির ভাগ শিক্ষক বিশ্ববিদ্যালয়ের সুযোগ-সুবিধায় উচ্চ শিক্ষার জন্য শিক্ষাছুটি নিয়ে পাড়ি জমাচ্ছেন বিদেশে। উচ্চ শিক্ষা শেষ করে তাদের অনেকেই দেশে ফিরছেন না। ভালো চাকরির সুযোগ পেয়ে সেখানেই যোগ দিচ্ছেন তারা। এভাবে মেধা পাচারের ফলে উচ্চ ডিগ্রিধারী শিক্ষকদের শিক্ষার সুফল থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

এছাড়া শিক্ষা সফরের নামে বিদেশ গিয়ে আর ফেরেননি এমন শিক্ষকও আছেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের। তাদের কাছে বিশ্ববিদ্যালয়ের পাওনা ৩ কোটি ৫৪ লাখ টাকা। বারবার তাগিদ দিয়েও সাড়া না পেয়ে তিন শিক্ষককে বরখাস্ত, পাঁচ শিক্ষকের বিরুদ্ধে মালমা ও আট শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে অধ্যাপক, সহযোগী অধ্যাপক, সহকারী অধ্যাপক ও প্রভাষক হয়েছে ৪৭৬ জন। উচ্চ শিক্ষার্থে ৭৬ জন শিক্ষক বর্তমানে বিভিন্ন দেশে অবস্থান করছেন। ইতোমধ্যে মেয়াদ পার করেছেন ২০ জন শিক্ষক। তারা আদেও দেশে ফিরবেন কি-না জানা নেই। বিদেশে যাওয়ার পর অনেক শিক্ষক বিশ্ববিদ্যালয়ের কারও সঙ্গে যোগাযোগ রাখেন না।

অভিযুক্ত শিক্ষকরা ইউআরপি ডিসিপ্লিনের সহযোগী অধ্যাপক এস এম রিয়াজুল আহসানের কাছে পাওনা ১২ লাখ ২৮ হাজার ৭৯০ টাকা। তার বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন। ইএস ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ড. মো: নাজিম উদ্দিনের কাছে পাওনা ২৪ লাখ ১ হাজার ২১০ টাকা। তার বিরুদ্ধে মামলা চলমান। ফার্মেসি ডিসিপ্লিনের আহমেদ আয়েদুর রহমানের (প্রাক্তন) কাছে পাওনা ৬ লাখ ৮৫ হাজার ৬৫১ টাকা। তার বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন। সিএসই ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ডা. মো: মাহবুবুর রহমানের কাছে পাওনা ১২৯২৬ টালা। তার বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন। স্থাপত্য ডিসিপ্লিনের সহযোগী অধ্যাপক এ এফ এম আশরাফুল আলমের কাছে পাওনা ২৪ লাখ ৫১ হাজার ৪৬৫ টাকা। তার বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন। স্থাপত্য ডিসিপ্লিনের সহযোগী অধ্যাপক এ টি এম মাসুদ রেজার কাছে পাওনা ১৯ লাখ ৭২ হাজার ৮ টাকা। তিনি কিস্তিতে শোধ করছেন। ইংরেজি ডিসিপ্লিনের সহযোগী অধ্যাপক মো: সামিউজ হকের কাছে পাওনা ১২ লাখ ৫৬ হাজার ২৫৭ টাকা। তিনি কিস্তিতে শোধ করছেন। সিএসই ডিসিপ্লিনের সহযোগী অধ্যাপক এস এম মাসুদ করীমের কাছে পাওনা ২১ লাখ ৪ হাজার ৩৫৩ টাকা। তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে মামলা চলমান। এফএমআরটি ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ড. শেখ বজলুর রহমানের কাছে পাওনা ৯ লাখ ৬৩ হাজার ২৬১ টাকা। তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে মামলা চলমান। এফএমআরটি ডিসিপ্লিনের সহযোগী অধ্যাপক মো সেলিম আজাদের কাছে পাওনা ৯ লাখ ৫৬ হাজার ২ টাকা। তিনি ৭ লাখ টাকা পরিশোধ করেছেন। তার বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন। সমাজবিজ্ঞান ডিসিপ্লিনের সহযোগী অধ্যাপক মো: শহিদুল ইলামের কাছে পাওনা ৬ লাখ ১০ হাজার ৫৮৩ টাকা। তার বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন। অর্থনীতি ডিসিপ্লিনের প্রফেসর ড. মো: সাইফুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন। এফএমআরটি ডিসিপ্লিনের প্রাক্তন প্রভাষক গোলাম রব্বানীর কাছে পাওনা ৪ লাখ ২৮ হাজার ৫৯৭ টাকা। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে পত্র পাঠানো হয়েছে। ফউটে ডিসিপ্লিনের এ এন এন নুরউল্লাহর কাছে পাওনা ১৬ হাজার ৬৯৭ টাকা। তাকে আইনী নোটিশ পাঠানো হয়েছে। সিএসই ডিসিপ্লিনের প্রাক্তন প্রভাষক মাসুদুর রহমানের কাছে পাওনা ১৮ লাখ ৪ হাজার ৭৪২ টাকা। তাকে চিঠি পাঠানো হয়েছে। সিএসই ডিসিপ্লিনের প্রাক্তন প্রভাষক শামীম ইয়সমিনের কাছে পাওনা ২০ লাখ ৪৫ হাজার ৬৩৭ টাকা। তাকে চিঠি পাঠানো হয়েছে। ফার্মেসি ডিপার্টমেন্টের প্রাক্তন সহকারী অধ্যাপক ইসরাত জাহান শহীদসহ (মামলা চলমান) ২০ শিক্ষক।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, উচ্চ ডিগ্রি অর্জনের জন্য একজন শিক্ষক পাঁচ বছরের শিক্ষাছুটি নিতে পারেন। এই সময়ে বেতন-ভাতা অব্যাহত থাকে। কিন্তু শিক্ষাছুটি শেষ করে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কোনো শিক্ষক চাকরিতে যোগদান না করলে তার চাকরির অবসান ঘটানো হয়।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অতিরিক্ত রেজিস্টার টিপু সুলতান বলেন, সিন্ডিকের তাদেরকে চূড়ান্ত নোটিশ দেওয়ার জন্য বলে। তারমধ্যেও যদি কেও চাকরীতে যোগদান না করে তবে তাদেরকে আমরা চাকরী থেকে অব্যহতি দিয়েছি। একই সাথে তাদেরকে পাওনা টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য ড. ফায়েকুজ্জামান জানান, উচ্চ শিক্ষার নামে যারা বিদেশ গিয়ে আর ফেরত আসেনি তারা দেশের মঙ্গল চান না।

তিনি আরো বলেন, আমাদের দেশের অ্যাম্বেসি ও ওই দেশের হাইকমিশনারদেরকে বলা হবে। বিদেশে কাজ করে বাংলাদেশ সরকারের টাকা চুরি করেছে। আমরা এরকম চিঠিপত্র লেখা শুরু করছি। সূত্রঃ মানবকণ্ঠ

 

ক্রাইমরিপোর্ট/সিকে

Check Also

ছাত্ররাজনীতি ছিল ও থাকবে: ভিপি নুর

অনলাইন ডেস্ক ছাত্ররাজনীতি নয় বরং এর নামে সন্ত্রাসী কার্যক্রম বন্ধের দাবি জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *