Breaking News
Home / আইন ও আদালত / প্রিন্স মুসার বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ১২ নভেম্বর

প্রিন্স মুসার বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ১২ নভেম্বর

ক্রাইম রিপোর্ট ডেস্ক

শুল্ক ফাঁকি ও সুইস ব্যাংকে টাকা জমা রাখার অস্বচ্ছ হিসাব দাখিলের অভিযোগে মুসা বিন শমসরের (প্রিন্স মুসা) বিরুদ্ধে করা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ১২ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।

রোববার মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। তবে তদন্ত সংস্থা শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ প্রতিবেদন দাখিল না করায় ঢাকা মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারী প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নতুন এ দিন ধার্য করেন।

প্রিন্স মুসা বিন শমসেরের বিরুদ্ধে শুল্কমুক্ত সুবিধায় আনা রেঞ্জ রোভার গাড়ি ভোলা বিআরটিএর কতিপয় কর্মকর্তার যোগসাজশে ভুয়া কাগজ দিয়ে রেজিস্ট্রেশন এবং বেনামে অবৈধ আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে মানি লন্ডারিংয়ের (অর্থপাচার) অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছে শুল্ক গোয়েন্দারা। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, ১৭ লাখ টাকা শুল্ক পরিশোধ দেখিয়ে ‘ভুয়া বিল অব এন্ট্রি’ প্রদর্শন করে গাড়িটি বেনামে রেজিস্ট্রেশন করা হয়।

শুল্ক গোয়েন্দাদের অনুসন্ধানে দেখা গেছে, গাড়িতে দুই কোটি ১৭ লাখ টাকার শুল্ককরাদি জড়িত। জিজ্ঞাসাবাদে প্রিন্স মুসা লিখিতভাবে জানান, সুইস ব্যাংকে তার ৯৬ হাজার কোটি টাকা গচ্ছিত রয়েছে। কিন্তু তিনি ওই টাকার কোনো ব্যাংক হিসাব বা বৈধ উৎস দেখাননি। কয়েকবার নোটিশ দিলেও তিনি তা জমা দেননি।

২০১৭ সালের ২১ মার্চ প্রিন্স মুসার গুলশানের বাড়িতে শুল্ক গোয়েন্দারা অভিযান চালিয়ে একটি রেঞ্জ রোভার গাড়ি জব্দ করেন। পরে ঢাকা কাস্টম হাউসে শুল্ক ফাঁকির অভিযোগে একটি মামলা করা হয়। একই সঙ্গে রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়ায় দুর্নীতির সংযোগ থাকায় তা পৃথকভাবে তদন্তের জন্য জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের মাধ্যমে দুর্নীতি দমন কমিশনকে অনুরোধ করা হয়।

ওই বছরের ৩১ জুলাই গুলশান থানায় মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে প্রিন্স মুসা বিন শমসেরের বিরুদ্ধে শুল্ক গোয়েন্দার সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা (এআরও) মো. জাকির হোসেন বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

Check Also

সিরাজগঞ্জে পিউরোলাইভ প্রতিষ্ঠানে অর্থ দন্ড

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃসিরাজগঞ্জের রহমতগঞ্জ এলাকার পিউরোলাইভ প্রতিষ্ঠানে ৪০ হাজার টাকা অর্থ দন্ড করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। রবিবার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *