Breaking News
Home / প্রচ্ছদ / লুটেরাদের উপদেষ্টা ও মন্ত্রী বানানো হয়েছে: ফখরুল

লুটেরাদের উপদেষ্টা ও মন্ত্রী বানানো হয়েছে: ফখরুল

অনলাইন ডেস্ক

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার লুটেরাদের উপদেষ্টা ও মন্ত্রী বানিয়ছে বলে অভিযোগ এনেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি সরকারকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘আপনারা যে চুরি করছেন এই ক্যাসিনোর মাধ্যমে তা প্রকাশ হয়ে গেছে। ক্যাসিনো তো ক্যাসিনো তার চেয়ে বড় কথা এই সরকার গত কয়েক বছরে ২৭ হাজার কোটি টাকা পাচার করেছে। এসব কারণে আজ দেশের অর্থনীতি পঙ্গু হয়ে গেছে। ঠিকভাবে কেউ ব্যবসা-বাণিজ্য করতে পারে না। তাদের চাঁদা দিতে হয়। আর যারা দেশের অর্থনীতি পঙ্গু করল, দেশটাকে লুটে খেল, সেসব লুটেরাদের বর্তমান সরকারের উপদেষ্টা ও মন্ত্রী বানানো হয়েছে’।
মির্জা ফখরুল বলেন, দেশ বাঁচাতে হলে, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে হলে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। কিন্তু তারা মুক্ত করতে দেবে না। তার জন্য আমাদের আন্দোলন করতে হবে।

দলমত নির্বিশেষে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে সবাইকে এক হওয়ার আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

রোববার বিকেলে রাজশাহী মাদ্রাসা মাঠ সংলগ্ন পাঠানপাড়া মোড়ের বড় রাস্তায় বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, বিএনপি স্বাধীনতার পক্ষের একটি দল। আমরা ক্ষমতা চাই না। আমরা জনগণের হাতে ক্ষমতা তুলে দিতে চাই। দেশের মানুষ মুক্তি চায়। সরকারের সব কিছু ফাঁস হয়ে গেছে। এখন জোর করে ক্ষমতায় টিকে থাকা যাবে না। তাই এখনও সময় আছে সংসদ ভেঙে দিয়ে অবিলম্বে নিরপেক্ষ নির্বাচন দিন।

তিনি বলেন, ১৮ মাস ধরে আমরা নেত্রীকে মুক্ত করার চেষ্টা করেছি। আন্দোলন করেছি, আমরা নির্বাচনে গেছি। কিন্তু আমাদের সব চেষ্টা ব্যর্থ করে বর্তমান সরকার দানবে পরিনত হয়েছে।

তিনি বলেন, ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের আগে থেকে এ পর্যন্ত বিএনপির ২৬ লাখ নেতাকর্মীকে আসামি বানিয়ে মামলা দেওয়া হয়েছে। যে লোকটি কোনো দিন রাস্তায়ও যায়নি তাকে দেওয়া হয়েছে নাশকতার মামলা। অথচ সে জানেই না নাশকতা কী? আমার বিশ্বাস সমাবেশে উপস্থিত অর্ধেকের নামে মামলা রয়েছে।

এ বিএনপি নেতা আরো বলেন, বর্তমান তথ্যমন্ত্রী নতুন করে বিভিন্ন তথ্য আবিষ্কার করছেন। তিনি হচ্ছেন, ক্রিয়েটিভ ইনফরমেশান মিনিস্টার। তিনি বললেন, প্রতি মাসে নাকি ক্যাাসিনোর টাকা তারেক রহমানের কাছে যায়।

রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু, রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু প্রমুখ।

বিভাগীয় সমাবেশ নিয়ে বিভিন্ন ধরনের বাধার মুখে পড়ে বিএনপি। শুরুতেই বৃষ্টিতে বাধাগ্রস্ত হয় বিভাগীয় এ সমাবেশ। দু’দিন ধরেই বৃষ্টি হচ্ছে রাজশাহীতে। রোববার সকাল থেকে লাগাতার বৃষ্টি চলে।

এর আগে শেষ মুহুর্তে শনিবার বিকেলে ২২ শর্তে বিএনপির রোববারের এই বিভাগীয় সমাবেশের অনুমতি দেয় পুলিশ (আরএমপি)।

বিএনপির পক্ষ থেকে রাজশাহীর মাদ্রাসা মাঠে সমাবেশের অনুমতি চাওয়া হলেও পুলিশ শেষ পর্যন্ত মাদ্রাসা মাঠের পাশের রাস্তায় তা আয়োজনের অনুমতি দেয়।

সমাবেশ উপলক্ষে রাজশাহী মাদ্রাসা মাঠে পূর্বপাশের সড়কে নির্মাণ করা হয় মঞ্চ। শনিবার রাত থেকে সেখানে মঞ্চ তৈরি শুরু হয়।

এদিকে, রোববার সকাল থেকে রাজশাহীর অভ্যন্তরীণ সব রুটে বাস চলাচল বন্ধ রাখে পরিবহন শ্রমিকরা।

তারা বলেন, সকাল থেকে ভারি বৃষ্টির কারণে বাস চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে।

তবে বিএনপির দাবি রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে প্রশাসনের নির্দেশে বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

রাজশাহী জেলা পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি কামাল হোসেন রবি বলেন, বৃষ্টির কারণে সকাল থেকে বাস বন্ধ করা হয়েছে। তবে ঢাকা রুটে বাস চলাচল করছে। বিএনপির সমাবেশের সঙ্গে বাস বন্ধের কোনো সম্পর্ক নেই বলে দাবি করেন তিনি।

রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, সমাবেশে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির জন্য প্রথম থেকেই পাঁয়তারা চলছিল। ১২ সেপ্টেম্বর মাদ্রাসা মাঠে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে চিঠি দেওয়া হয় নগর পুলিশকে। কিন্তু আগের দিন বিকেলে সড়কে সমাবেশ করার অনুমতি দেয় পুলিশ।

Check Also

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে অগ্নিকান্ডে ১টি বাড়ি ভস্মীভূত

গীতি গমন চন্দ্র রায় গীতি, স্টাফ রিপোর্টার: ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ গতকাল রাত ১০/১১ ঘটিকার সময় হঠাৎ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *