Breaking News
Home / অপরাধ / স্বামী কে মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে স্ত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করলো পুলিশ

স্বামী কে মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে স্ত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করলো পুলিশ

ফাহাদ আহমেদ মিঠু

মিথ্যা মাদক মামলা ও অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে এক নারীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছে ডেমরা থানা কোনাপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই এনামুল হক। মুসলিম নগর জিরোপয়েন্ট এলাকার বাসিন্দা ঐ নারীকে ২ সেপ্টেম্বর ২০২১ বৃহস্পতিবার রাতে ডেমরা থানা এলাকার কোনা পাড়া পুলিশ ফাঁড়ির পাশে একটি টিন সেড ঘরের ভিতর নিয়ে বাদীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে অস্ত্রের ভয় এবং তার স্বামী কে মিথ্যা মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে দুই ঘন্টা আটকে রেখে দুই দফা ধর্ষণ করেন এবং ছয় হাজার টাকা ঘুষ নেন। এ ঘটনার বিষয়ে ভুক্তভোগী ধর্ষিতা ঐ নারী ডিএমপি কমিশনার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে ফরিদপুর জেলার ভাঙ্গা উপজেলার কালামৃধা গ্রামের বাসিন্দা আলী আকবর এর কন্যা। ঐ নারী স্বামী সন্তান নিয়ে মাতুয়াইলের মুসলিম নগর জিরোপয়েন্ট এলাকায় জব্বার মিয়ার বাড়ির তৃতীয় তলায় ভাড়া থাকেন। তার স্বামী নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড লিংক রোডে একটি মিনি গার্মেন্টস এর মালিক। ঘটনার দিন রাত ১২ঃ৩০ মিনিটের সময় তার স্বামী গার্মেন্টস এর কাজ সেরে বাসায় ফেরার পথে কোনাপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই এনামুল হক তাকে আটক করে ফাঁড়িতে নিয়ে যায়। পরে কোনাপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই এনামুল হক আটক সেই মিনি গার্মেন্টস ব্যাবসায়ীর স্ত্রীর মোবাইলে ফোন করে জানান যে,তার স্বামীর কাছে মাদক পাওয়া গেছে এবং তাকে দ্রুত ফাঁড়িতে আসতে বলেন। ভুক্তভোগী ঐ নারী দ্রুত তার ৪ বছরের শিশু কন্যাকে ঘুমে রেখে পাশের ঘরের অন্য মহিলাকে দেখতে বলে ফাঁড়িতে চলে আসেন। এস আই এনামুল হক ভুক্তভোগী নারীকে জানায় যে তার স্বামীর কাছে ২০০ পিস ইয়াবা পাওয়া গেছ, তাকে ছাড়াতে হলে ১ লক্ষ টাকা দিতে হবে। তার কথা শুনে ভুক্তভোগী নারী কান্নাকাটি করে স্বামীকে মুক্ত করতে অনুরোধ করেন। পরে এস আই এনামুল হক ঐ নারীকে ডেমরা থানা এলাকার কোনাপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির পাশে একটি টিন সেড বাসার ভিতরে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে গিয়ে এস আই এনামুল হক তাকে বলেন, এখন কত টাকা দিতে পারবেন। ঐ নারী তাকে ছয় হাজার টাকা দিতে পারবেন বলে জানায় কিন্তুু এস আই এনামুল হক তাকে আরও কিছু দিতে হবে বলে জানায়।সেই কথা বলেই ভুক্তভোগী নারীকে জরিয়ে ধরে শরীরের স্পর্ষকাতর স্থানে হাত লাগায় এবং কোমর থেকে পিস্তল বের করে হত্যার ভয় দেখিয়ে ঐ নারীর সাথে ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর করে ধর্ষণ করে

Check Also

শিক্ষিকা মায়া রানী ঘোষ হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন, আসামি গ্রেফতার

সুজন রাজশাহী প্রতিনিধিঃ রাজশাহী মহানগরীর কুমারপাড়ায় অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষিকা মায়া ঘোষ হত্যার ঘটনায় ঘাতক রাজমিস্ত্রি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *