Breaking News
Home / জাতীয় / মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ১০ দিনব্যাপী ‘মুজিব চিরন্তন’

মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ১০ দিনব্যাপী ‘মুজিব চিরন্তন’

এস.এম. রুবেল আকন্দ:

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর উদযাপন উপলক্ষে ১০ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালা চলছে। ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার রায়মনি, বীর প্রতীক লেফটেন্যান্ট জেনারেল এম হারুন আর-রশিদ উচ্চ বিদ‍্যালয়ে  গত ১৭ মার্চ থেকে ২৬ মার্চ পযর্ন্ত এসব অনুষ্ঠান চলছে বলে জানিয়েছেন মো: আবুল কালাম মেম্বার। মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) সকালে বীর প্রতীক লেফটেন্যান্ট জেনারেল এম হারুন আর-রশিদ উচ্চ বিদ‍্যালয়ে অনুষ্ঠান হয়। জাতির পিতার জন্মশত বার্ষিকী শুভ জন্মদিন ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তি অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, বীর প্রতীক লেফটেন্যান্ট জেনারেল এম হারুন আর-রশিদ উচ্চ বিদ‍্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদ সদস্য মো: আবুল কালাম মেম্বার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বীর প্রতীক লেফটেন্যান্ট জেনারেল এম হারুন আর-রশিদ উচ্চ বিদ‍্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সদস্য সচিব মো: গোলাম হামদানী, বিদ‍্যালয়ে পরিচালনা পর্ষদ সদস্য, আব্দুস সবুর মাষ্টার, হাজী সোলাইমান কাজী ও মো: সেলিম সারোয়ার প্রমূখ।

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ‘মুজিব চিরন্তন’ প্রতিপাদ্য নিয়ে ১০ দিনব্যাপী অনুষ্ঠান আয়োজনের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। অনুষ্ঠানমালায় প্রতিদিন পৃথক থিমভিত্তিক আলোচনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, অডিও-ভিজুয়াল এবং অন্যান্য বিশেষ পরিবেশনার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। ১০ দিনের অনুষ্ঠানমালার থিমগুলো হলো- ১৭ মার্চ ২০২১ তারিখে ‘ভেঙেছ দুয়ার এসেছ জ্যোতির্ময়’, ১৮ মার্চ ‘মহাকালের তর্জনী’, ১৯ মার্চ ‘যতকাল রবে পদ্মা যমুনা’, ২০ মার্চ ‘তারুণ্যের আলোকশিখা’, ২১ মার্চ ‘ধ্বংসস্তূপে জীবনের গান’, ২২ মার্চ ‘বাংলার মাটি আমার মাটি’, ২৩ মার্চ ‘নারীমুক্তি, সাম্য ও স্বাধীনতা’, ২৪ মার্চ ‘শান্তি-মুক্তি ও মানবতার অগ্রদূত’, ২৫ মার্চ ‘গণহত্যার কালরাত্রি ও আলোকের অভিযাত্রা’ এবং ২৬ মার্চ ‘স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর ও অগ্রগতির সুবর্ণরেখা’।

তিনি বলেন, ১৭, ১৯, ২২, ২৪ এবং ২৬ মার্চের অনুষ্ঠান বিকেল সাড়ে ৪টায় শুরু হবে এবং রাত ৮টায় শেষ হবে। অন্যান্য দিনের অনুষ্ঠান বিকেল ৫টা ১৬ মিনিটে শুরু হবে এবং রাত ৮ টায় শেষ হবে। প্রতিদিনের অনুষ্ঠানে সন্ধ্যা ৬ থেকে ৬টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত বিরতি থাকবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষ্যে জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে হবে ১০ দিনের অনুষ্ঠান।

এসময় বক্তারা বলেন,  বেঁচে থাকলে আজ তাকে নিয়েই বাঙালি উদযাপন করত তার ১০১তম জন্মবার্ষিকী; ঠিক নয় দিন পর তার হাত দিয়েই উড়ত স্বাধীন বাংলার সুবর্ণজয়ন্তীর পতাকা। (যদি রাত পোহালেই শোনা যেত বঙ্গবন্ধু মরে নাই)- এ গানের কথা যে বাঙালিই মনের কথা।

সেই শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকী বুধবার, যার হাত ধরে এসেছে বাংলাদেশের স্বাধীনতা, দেশের মানুষ ভালোবেসে যাকে দিয়েছে বঙ্গবন্ধু উপাধি, স্বাধীন দেশের সংবিধান যাকে দিয়েছে জাতির পিতার স্বীকৃতি।

জন্মদিন নিয়ে বিশেষ কোনো ভাবনা ছিল না বঙ্গবন্ধুর; তিনি বলতেন, “আমার জন্মদিনই কী, আর মৃত্যুদিনই কী? আমার জনগণের জন্য আমার জীবন ও মৃত্যু। আমি তো আমার জীবন জনগণের জন্য উৎসর্গ করেছি।” তার হাত ধরেই বাঙালি পেয়েছিল স্বাধীনতার দিশা; অর্ধ শতকের পথচলায় অর্থনৈতিক মুক্তির যে সোনালি দিগন্তের সামনে আজ বাঙালি দাঁড়িয়ে, তারও অনুপ্রেরণা তিনি। গতবছর সাড়ম্বরে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের প্রস্তুতি নিয়েছিল সরকার। কিন্তু করোনাভাইরাসের মহামারীতে স্বাস্থ্যঝুঁকির কথা বিবেচনায় নিয়ে মূল আয়োজন সীমিত করা হয়। তারপরও নানা আয়োজনে আগামী বিজয় দিবস পর্যন্ত মুজিববর্ষের উদযাপন চলবে। তারই মধ্যে এবারের স্বাধীনতা দিবসে আসছে বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের আরেক মাহেন্দ্রক্ষণ। মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ‘মুজিব চিরন্তন’ প্রতিপাদ্যে ১০ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালায় স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে সীমিত আকারে, বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকা ছাত্র-ছাত্রী ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত থাকবে।

Check Also

দিনাজপুরে “পড়া লেখা কোচিং সেন্টারকে” সরকারী নির্দেশনা অমান্য ১ লক্ষ টাকা জরিমানা

মোঃ মঈন উদ্দীন চিশতী, দিনাজপুরঃ সরকারী নির্দেশনা অমান্য করে দিনাজপুর শহরের বড়বন্দর এলাকার স্বাস্থ্য বিধি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *