Breaking News
Home / অপরাধ / আগামীকাল খালেদা জিয়ার মামলার রায়

আগামীকাল খালেদা জিয়ার মামলার রায়

আগামীকাল ঘোষণা হতে যাচ্ছে বহুল আলোচিত জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়। এ রায়কে ঘিরে ইতিমধ্যেই মুখোমুখি অবস্থানে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। আনুষ্ঠানিকভাবে না বললেও, দু দলই কাল মাঠে থাকার প্রস্তুতি নিয়েছে। দল দুটি একে অপরকে দোষারোপ করে বলছে, রায়কে ঘিরে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করার গভীর ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। তবে ডিএমপি বলছে, কোন দলকেই বৃহস্পতিবার নগরীর কোথাও জড়ো হতে দেয়া হবে না। বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ ছয় জনের বিরুদ্ধে এতিম তহবিলের নামে টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২০০৮ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় রমনা থানায় জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলাটি করে দুদক।

২০০৯ সালে অভিযোগপত্র দাখিলের পর এ পর্যন্ত ২৩৬ দিন শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার আলীয়া মাদ্রাসা মাঠের বিশেষ জজ আদালতে ঘোষণা হতে যাচ্ছে এ মামলার রায়। রায়কে ঘিরে গেলো কয়েকদিন ধরেই আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে চলছে পাল্টাপাল্টি বক্তব্য। বিএনপির দাবি, আওয়ামী লীগের মন্ত্রী-এমপিরা রায় নিয়ে নানা বক্তব্য দিয়ে সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করার পাশাপাশি আদালতকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছেন। তবে আওয়ামী লীগ বলছে, আগে থেকেই বিএনপি রায় নেতিবাচক হবে ধরে নিয়ে বিশৃঙ্খলা তৈরির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু বলেন, ‘অস্থিরতা তারা (আওয়ামী লীগ) সৃষ্টি করছে। এ অস্থিরতা সৃষ্টির পিছনের কারণ কি সেটাও জনগণের মনে সন্দেহের জন্ম দিয়েছে। বিচারক এখনও রায় না দিলেও সরকারের পক্ষ থেকে রায় দেয়া হয়েছে। আর তার চেয়ে বড় কথা এই রায়ের দিনের জন্য প্রস্তুতিও নেয়া হচ্ছে। আইনের নাম দিয়ে এ রায়টি রাজনৈতিকভাবে পরিচালিত হচ্ছে তা সবার কাছে পরিস্কার হয়ে গেছে। আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কর্নেল ফারুক খান বলেন, ‘এ ঘটনাকে রাজনৈতিকরণের চেষ্টা করছে বিএনপি। রায়ের আগেই তারা বিভিন্ন ধরণের হুমকি ধুমকি দিচ্ছেন। বিএনপি আগেই স্বীকার করে নিয়েছে যে, তারা ভুল করেছে এবং তাদের সাজা হবে। সুতরাং তারা বিভিন্ন কথা বলে আদালতকে ভয় দেখাবার চেষ্টা করছে। বিএনপি অনেক লোকজন নিয়ে আদালতে যাওয়া, রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা এক ধরনের হুমকির সামিল। এটা অগণতান্ত্রিক।’

রায়ের দিন আনুষ্ঠানিক কর্মসূচি না দিলেও দুটি দলই বলছে, সাধারণ মানুষকে সঙ্গে নিয়ে তারা ঐদিন শান্তিপূর্ণভাবে মাঠে অবস্থান করবেন। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু বলেন, ‘প্রকাশ্যে তারা (আওয়ামী লীগ) বলছে, তারা রাস্তায় অবস্থান নিবে। তাদের কাজ তো আইন শৃঙ্খলা রক্ষা করার কাজ নয়। দলীয় নেতা কর্মিরা তো স্বতস্ফুর্তভাবে বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে থাকেই। এটা একটা রাজনৈতিক অবস্থান। আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কর্নেল ফারুক খান বলেন, ‘আমরা শুধু আমাদের দলীয় নেতা কর্মিদের কাছে অনুরোধ করেছি যে, আপনারা সজাগ থাকবেন। যাতে কোনো ধরণের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হতে না পারে।’

তবে কোন দলকেই বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির সুযোগ দেয়া হবে না জানিয়ে ডিএমপি বলছে, জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে তাদের। ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘আমরা মাঠে থাকবো, জনগণের সঙ্গে থাকবো। দলবদ্ধভাবে কেউ যদি ঢাকা মহানগরের মধ্যে নৈরাজ্য সৃষ্টি করে তা কঠোর হাতে দমন করবো। কোনো দল রাস্তায় নেমে জনগণের জানমাল ও জীবনের ক্ষতি করবে তা কোনোভাবেই বরদাস্ত করা হবে না। রায়কে ঘিরে নগরবাসীর দৈনন্দিন জীবনে যাতে কোন ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টি না হয় সেদিকেও পুলিশ নজর রাখবে বলে জানিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার।

Check Also

ধামরাইয়ে ৩শত পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান

মোঃ বুলবুল খান পলাশ, ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধিঃ-ঢাকার ধামরাইয়ে নিজ ব্যক্তিগত তহবিল থেকে করোনাকালীন সময়ে পৌর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *