Breaking News
Home / অপরাধ / চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের আইসিডি (কমলাপুর) মেট পদে পদোন্নতিতে ঘুষের বাণিজ্য

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের আইসিডি (কমলাপুর) মেট পদে পদোন্নতিতে ঘুষের বাণিজ্য

এস এ সহিদ : যোগ্যদের বাদ দিয়ে স্বজনপ্রীতি দলীয় রাজনৈতিক প্রভাব ও রমরমা ঘুষের বিনিময়ে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের ঢাকা আইসিডি (কমলাপুর) মেট পদে 22 জনকে পদোন্নতি দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে । আইসিডিতে দু,একজন সৎ কর্মকর্তা ছাড়া সবাই কম বেশি ঘুষ খান এবং প্রকাশ্যে একযামিন মাঠে ও দাপ্তরিক টেবিলে বসে প্রকাশ্যে হাত পেতে গুনে গুনে ঘুষের টাকা নেন বলে অভিযোগ আছে । চট্টগ্রাম বন্দরের সেবা নিয়ে ইতিপূর্বে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) এর জরিপে ঘুষ দুর্নীতি মালামাল চুরি ও ব্যবস্থাপনায় এই চিত্র উঠে এসেছে । দুদক কমিশনার (অনুসন্ধান) ডক্টর নাসির উদ্দিন আহমেদের এক জরিপে পাওয়া বিষয়গুলো নিয়ে বন্দর কর্তৃপক্ষের ও কাস্টম হাউস কমিশনার এর সঙ্গে আলোচনা করেছেন । তাদের হয়রানি মুক্ত ও মানসম্মত সেবা দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে । কমলাপুর আইসিডি গোটা প্রতিষ্ঠান দুর্নীতি লুটপাট ও অবৈধ অর্থ আয়ের এক বিশাল নেটওয়ার্ক গড়ে উঠেছে । এরা বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দলের অর্থাৎ আওয়ামী লীগের নাম ভাঙ্গিয়ে নানা অপকর্মের সাথে সরাসরি জড়িত । পদোন্নতি কে ঘিরে ব্যাপক ভাবে ঘুষ বাণিজ্যের বর্তমান ডি টি এম মোহাম্মদ আহমেদ উল্লাহ-র নাম ব্যাপকভাবে উচ্চারিত হচ্ছে । তার সাথে ঘুষ বাণিজ্যে সরাসরি জড়িত আছেন আইসিডি (কমলাপুর) শাখার শ্রমিক ইউনিয়ন (রেজি:3086) এর বর্তমান উপ নির্বাচনে নির্বাচিত সভাপতি মোঃ বাবুল খান ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবির হোসেন ও অতিরিক্ত সিবিএর উপদেষ্টা কমিটির সদস্য ইমরান হোসেন, স্বন্দীপ আনোয়ার, আলমগীর, ইসমাইল হোসেন,(কতিথ শ্রমিক লীগের নেতা) ও সিবিএর আরও 11 জন নেতা । মেট পদে পদোন্নতি পাওয়া 22 জনের মধ্যে সাধারণ সম্পাদক ও আবির হোসেন নিজের রাজনৈতিক প্রভাবে ও সভাপতির সহোদর ভাই নয়ন মিয়া পদোন্নতিতে উত্তীর্ণ হলেও বাকি 20 জন, যেমন_ ইসমাইল হোসেন, ইমরান, জালাল, বাবুল, ইমরান,স্বন্দীপ আনোয়ার, আনোয়ার সহ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনের সবাই 2/3 (দুই-তিন) লাখ টাকা মাথাপিছু ঘুষ দিয়ে-ই পদোন্নতি বাগিয়ে নিয়েছে বলে জানা গেছে । অন্যদিকে যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা থাকা সত্ত্বেও পদোন্নতি না পাওয়ায় হতাশ হলেন 219 জন সাধারণ শ্রমিকরা । তারা বলেছে প্রশিক্ষিত ও দক্ষ দীর্ঘদিন যারা সততা ও যোগ্যতার সাথে নিয়মিত কাজ করে আসছে তাদের মূল্যায়ন ও পদোন্নতি না দিয়ে নগদ ঘুষের টাকা নিয়ে অযোগ্যদের মেট পদে পদোন্নতি দিয়েছে আইসিডির বর্তমান ডিটিএম ও শ্রমিক ইউনিয়ন কর্মকর্তা ব্যক্তিরা । পদোন্নতি শ্রমিকদের মধ্যে উল্লেক্ষ্য রফিকুল ইসলাম, নুরুল ইসলাম, মমতাজ উদ্দিন, আলমগীর, ইব্রাহিম, আমিনুল ইসলাম, জাব্বার,পিয়াল, খালেক, ভাগিনা শহীদ, আলম, আলামিন, মান্নান, নুর আলম,জামাই শহিদ, সহ সকল শ্রমিকে-ই এসব পদোন্নতির বিষয়ে হতাশ হয়েছেন । এক শ্রেণীর ঘুষখোর দুর্নীতিবাজ শ্রমিক নেতা ও দালালদের সহযোগিতায় পদোন্নতি-র টোপ দিয়ে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে রাতারাতি আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়েছে সিবিএ নেতারা । এ দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ বিভাগীয় ভাবে ও দুদকের মাধ্যমে অভিযোগ অনুসন্ধান করে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে অনুরোধ করেছেন সকল সাধারণ শ্রমিকরা । উল্লেখিত সংবাদটি গত 17 নভেম্বর 2020 ইং তারিখে দৈনিক গণজাগরণ পত্রিকায় প্রকাশিত হলে আইসিডি কমলাপুর শ্রমিক ইউনিয়ন কর্তৃক দৈনিক গণজাগরণ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক কে মুঠোফোনে ভয় ভীতি ও মামলার হুমকি দেওয়া হয় । অন্যদিকে সংবাদে প্রকাশিত শ্রমিকদেরকে সভাপতি ও সেক্রেটারি কর্তৃক বকা ঝকা ও নানাবিধ ভয়-ভীতি প্রদর্শন ও ভবিষ্যৎ সংবাদ প্রকাশিত হলে এর দায়ভার নিতে হবে মর্মে বন্ড সই নিয়েছেন । সাধারণ শ্রমিকের বরখাস্ত চাকুরিচুত্য ও ভবিষৎ চাকুরী প্রাপ্তির সম্ভাবনা বাতিল সহ নানা ধরনের ভয় ভিতি দেখাচ্ছে ঘুষখোর সিবিএ নেতা ও ডিটিএম সিন্ডিকেট । অভিযোগ উঠেছে বর্তমান সিবিএ শ্রমিক উপদেষ্টা ও বিএনপি নেতা ইমরান টাকার বিনিময়ে গতবছর বাগিয়ে নেন শ্রমিকের চাকুরি । নিজে স্ব-শরিলে কাজ না করলেও সে আইসিডি এর নিয়মিত শ্রমিক । এবং শ্রমিক ইউনিয়নের উপদেষ্টা মন্ডলীর অন্যতম সদস্য । বর্তমানে তার হট-কারী বুদ্ধি-পরামর্শে শ্রমিক ইউনিয়নে আজ গড়ে উঠেছে দুর্নীতি ও ঘুষ খোরের আখড়া । সাধারণ শ্রমিকের যে কোন সাধারন সমস্যা সমাধানে দিতে হয় ঘুষ অন্যথায় বঞ্চিত হয় সাধারণ শ্রমিকরা আর এ অবস্থা দেখার যেন কেউ নেই । এ সংবাদ এর প্রেক্ষিতে এক অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে ইমরানের অনেক অজানা গোপন তথ্য । এবার আসা যাক কে এই ইমরান ? গত 1993 ইং সালে কমলাপুর শিমা হত্যায় জড়িত ছিলেন এই ইমরান ও তার সহযোগী ছিল শাকিল দুজনেই কমলাপুরের স্থায়ী বাসিন্দা । ইমরান নিজেকে আড়াল করার জন্য হত্যা মামলা থেকে বাঁচাবার হাতিয়ার হিসেবে চাকুরি নেই ইমরান, তাকে সহযোগিতা করেন তৎকালীন বিএনপি নেতা বাবুল খান তাপস । চাকুরী কেনার পর তার কটূক্তি ও দূরদর্শিতার পরিচয় মিলে তার বর্তমান কর্মকাণ্ডে বিগত আইসিডি শ্রমিক নেতা সভাপতি খবির হাওলাদার কে নারী কেলেঙ্কারি দ্বারা পদত্যাগ ও চাকুরী বিক্রয়ে বাধ্য করেন এই ইমরান । তার চাটুকারি নীতি ও কূটনীতির কাছে বর্তমান শ্রমিক লীগের সকল নেতা আজ পরাজিত । বিগত দিনে আইসিডি আনসার সদস্য হত্যা সহ নানা অপকর্মের সাথে জড়িত এই ইমরান । সরাসরি জড়িত (কমলাপুর) ও আইসিডি সকল সাধারণ শ্রমিকরা তার ভয়ে তটস্থ বিগত দিনে বিএনপি কর্তৃক গাড়িতে অগ্নিসংযোগ পেট্রোল বোমা হামলা সহ নানা ধরনের রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ডে সে জড়িত । তার দাপটে অনেক নেতাও আইসিডির সাধারণ শ্রমিকরা ভয়ে ভয়ে থাকে । ইমরান কমলাপুরের স্থায়ী বাসিন্দা বিধায় এ দাপট দেখাচ্ছেন । উক্ত অভিযোগের যথাযোগ্য তদন্ত করে দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে অনুরোধ করেছেন আইসিডির সকল সাধারণ শ্রমিকগণ ও পদ বঞ্চিতরা ।

Check Also

বিরলে ট্রাক ও মোটরসাইকেল সংঘর্ষ নিহত-৩

দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুর জেলার বিরল উপজেলার ফরক্কাবাদ ইউপি’র জয়নুল মুদিখানা সংলগ্ন সড়কে ট্রাক চাপায় ০৩ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *