Breaking News
Home / প্রচ্ছদ / নারী অবমাননা, জড়িত ববি শিক্ষার্থী

নারী অবমাননা, জড়িত ববি শিক্ষার্থী

আকরাম খান ইমন, ববি প্রতিনিধি

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের স্নাতকোত্তর পড়ুয়া শিক্ষার্থী তানভীর আসিফ এর বিরুদ্ধে নারী অবমাননা ও বাজে মন্তব্য করার অভিযোগ করেছেন একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষার্থী নুসরাত নিশু।

অভিযোগ কারী শিক্ষার্থী জানান,তানভীর আসিফ ( Tanvir Asif) নামে ফেসবুক আইডি থেকে পোস্ট করা হয় যে,বিয়ের ক্ষেত্রে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের আমি কখনোই নিজের উপযুক্ত মনে করি না,তা সে যত বড় বাড়ির মেয়েই হোক না কেনো,বা যত সুন্দরী বা যত উচ্চ সিজিপিএ ধারীই হোক না কেন!!!
এই ফেসবুক পোস্ট টি আমি তার নামের একটা শব্দ মুচে শেয়ার করি আর ক্যাপশন দেই যে,
কে? কে? কে? কে সেই হৃদয়হীনা আপু যে ভাইটির হৃদয় টুকরো টুকরো করে দিয়েছে।যার জন্য সে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়া সব মেয়েদের এভাবে হেনস্তা করেছে।।
এরপর তানভীর আসিফ (Tanvir Asif) নামে ফেসবুক আইডি থেকে আমার এই পোস্টের স্ক্রিনশট তুলে নিয়ে আমার সম্পর্কে বাজে বাজে মন্তব্য করে ফেসবুকে পোস্ট করে।সে আমার হাইট নিয়ে কথা বলে, আমাকে বামন বলে। আমাকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়। আমাকে থাপ্পড় পর্যন্ত মারতে চাইছে।। এমনকি আমাকে ইনবক্সে অসভ্য ভাষায় যা তা বলে।

এক প্রশ্নের জবাবে অভিযোগকারী শিক্ষার্থী জানান,আমি এখন বরিশালে অবস্থান না করায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বরাবর অভিযোগ করতে পারছি না তবে আমি আমার পরিচিত এক ভাইয়ের সাহায্যে আমার নিকটস্থ ডিবি কার্যালয়ে অভিযোগ জানিয়েছি।তারা আমাকে আশ্বস্ত করেছেন।পরে জানতে পারি যে,অভিযুক্ত, তার বাবা ও তার পরিচিত একজন বরিশালের ডিবি কার্যালয়ে গিয়েছিল।তারা ক্ষমা চাইছে।ভবিষ্যতে এই রকম কাজ আর করবে না বলে জানিয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নারী শিক্ষার্থী জানান, তানভীর আসিফ এর আগে আমাকে এ রকম অশালীন কথাবার্তা বলেছিল।আমি চক্ষুলজ্জার ভয়ে এগুলো কাওকে জানাই নি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সচেতন শিক্ষার্থীরা বলেন, তানভীর আসিফের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বরাবর অভিযোগ দেয়া উচিত।যাতে ভবিষ্যতে কেও এরকম বাজে কাজ করার সাহস না দেখায়।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত শিক্ষার্থী তানভীর আসিফ জানান, নুসরাত নিশু (Nusrat Nishu) নামের মেয়েটি আমাকে এবং আমার পরিবার কে নিয়ে চরম অবমাননাকর একটি মিথ্যা স্ট্যাটাস দিয়ে আমার এবং আমার পরিবার এর মানহানি করেছে, আমি কিংবা আমার বাবা বা কেউ ডিবি অফিসে যাইনি, অথচ সে পাবলিকলি পোস্ট দিয়ে দিয়েছে যে আমি আর আমার বাবা নাকি ডিবি অফিসে গিয়ে হাতে পায়ে ধরে কান্নাকাটি করেছি।তার বোন ইসরাত ইসু আমাকে এবং আমার বাবাকে তুলে ইতরের বাচ্চা ইতর বলে গালাগালি করেছে।

Check Also

দিনাজপুরে ৩ রোভারের পায়ে হেঁটে ১৫০ কিলোমিটার পরিভ্রমণ

মোঃ মঈন উদ্দীন চিশতী, দিনাজপুরঃ বাংলাদেশ স্কাউটস, দিনাজপুর জেল রোভারের আয়োজনে প্রেসিডেন্ট’স রোভার স্কাউট অ্যাওয়ার্ড …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *