Home / অপরাধ / যশোরের কুয়াদায় বহুলআলোচিত সাতক্ষীরা ঘোষ ডেয়ারিতে তৈরী হচ্ছে নিন্মমানের খাবার

যশোরের কুয়াদায় বহুলআলোচিত সাতক্ষীরা ঘোষ ডেয়ারিতে তৈরী হচ্ছে নিন্মমানের খাবার

বিএম মিলন, স্টাফ রিপোর্টারঃ

যশোরের কুয়াদা বাজারে সাতক্ষীরা ঘোষ ডেয়ারিতে অসাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে তৈরী হচ্ছে নিন্মমানের খাবার।
জানা যায়, যশোর সদরের কুয়াদা বাজার বাসষ্টান্ড সংলগ্ন ঢাকুরিয়া রোডে সাতক্ষীরা ঘোষ ডেয়ারির প্রোপাইটর সুজয় কুমার ঘোষ অসাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশে অবাধে তৈরী ও বিক্রি করছে দধি, চমচম, সন্দেশ, বন্দে, ছানা জিলাপীসহ বিভিন্ন প্রকার খাদ্য। যা খেয়ে মানুষ অসুস্থ্য হচ্ছে হরহামেশাই। মঙ্গলবার রাতে কুয়াদা বাজার থেকে বাড়ি যাওয়ার সময় পলাশী গ্রামের আনিচুর রহমান ৩’শ গ্রাম বন্দে কিনে নিয়ে যায়। পরের দিন সকালে ওই বন্দে তার মেয়ে অল্প একটু খেয়েই বমি করে ফেলে। তারপর সেই নষ্ট বন্দে সাতক্ষীরা ঘোষ ডেয়ারিতে নিয়ে আসলে সুজয় কুমার কাউকে কিছু না বলার শর্তে ক্ষমা চেয়ে এ যাত্রায় রক্ষা পায়। শুধু তাই নয়, সম্প্রতি কুয়াদা এলাকার ব্রাক্ষণডাঙ্গা গ্রামের হাতেম গাজীর ছেলে মৃত রবিউল ইসলামের জামাই উজ্বল কাজি নতুন শ্বশুর বাড়ি বেড়াতে এসে, কুয়াদা বাজারের সাতক্ষীরা ঘোষ ডেয়ারি থেকে দুই কেজি চমচম মিষ্টি কিনে নিয়ে যায়। নতুন শ্বশুর বাড়ির অনেকেই সেই মিষ্টি খেয়ে অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। পরে তারা সাতক্ষীরা ঘোষ ডেয়ারিতে প্রোপাইটর সুজয় কুমার ঘোষের কাছে এসে পচা-বাসি মিষ্টির কথা বললে তাদেরকে পুনরায় ১ কেজি মিষ্টি দেয়। এই সুজয় কোন নিয়ম-নীতির তোয়াক্ক না করে বহুদিন ধরে তার এ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে বলে বিস্তর অভিযোগ উঠেছে।
এর আগে ও এই আলোচিত সুজয় কুমার ঘোষের বিরুদ্ধে নানাবিধ অভিযোগ রয়েছে।
শুধু তাই নয়, একই বাজারে পাশাপাশি সাতক্ষীরা ঘোষ ডেয়ারি নামে ভিন্ন মালিকে দুইটি হোটেল চালাচ্ছে কি ভাবে এমন প্রশ্ন এলাকাবাসির। কে আসল, কে নকল বোঝার কোন উপায় নেই।
এ বিষয়ে এলাকার সচেতনমহল দ্রুত সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Check Also

পোরশায় ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত অঙ্গীকার

নাহিদ নওগাঁ (পোরশা) প্রতিনিধিঃ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত অঙ্গীকার মাননীয় খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *