Breaking News
Home / জাতীয় / কক্সবাজারে পর্যটকদের ‍ভিড় নতুন বছরকে বরণ করতে

কক্সবাজারে পর্যটকদের ‍ভিড় নতুন বছরকে বরণ করতে

পুরনো বছরকে বিদায় আর নতুন বছরকে বরণ করতে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত এখন হাজার হাজার পর্যটকের পদভারে মুখরিত। আর পর্যটকদের আকর্ষণে হোটেল মোটেলগুলো সেজেছে বর্ণিল সাজে, থাকছে অভ্যন্তরীণ নানা আয়োজন। এদিকে বর্ষবরণে নিরাপত্তার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নিয়েছে ট্যুরিস্ট ও জেলা পুলিশ। 

শীতের আমেজ সে সাথে সমুদ্র সৈকতে পুরনো বছরকে বিদায় আর নতুন বছরকে বরণ। প্রকৃতি আর সময়ের এত আয়োজন একসাথে উপভোগের সুযোগকে হাতছাড়া করতে চায়। তাই সবাই ছুটে এসেছে সৈকত শহর কক্সবাজারে।

এখানে আগত পর্যটকরা বলেন, চলতি বছরের শেষ মুহূর্ত এবং নতুন বছরের শুরুটা এখানেই করতে চাচ্ছি। অনেকবার আসলেও কক্সবাজারের জন্য সবসময়ই মন টানে। সেই টানেই এখানে বারবার ছুটে আসা।

পর্যটকদের আকর্ষণে হোটেল মোটেলগুলো সেজেছে বর্ণিল সাজে। প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞার কারণে উন্মুক্ত সৈকতে কোন আয়োজন না থাকলেও তারকামানের হোটেলগুলোতে আনন্দ দিতে রয়েছে নানা আয়োজন।

হোটেল কর্মকর্তারা বলেন, নতুন বছর উপলক্ষে প্রশাসন খুব বেশি করার অনুমতি দেয় না। তবে আমরা আমাদের অতিথিদের জন্য ইন-হাউজ কিছু করার চেষ্টা করছি।

প্রতিবছরের মতো এবারও কাঙ্ক্ষিত পর্যটক আসায় খুশি ব্যবসায়ীরা। আনন্দঘন মুহূর্তে পর্যটকরা পুরনো বছরকে বিদায় আর নতুন বছরকে বরণ করতে পারবে বলে জানিয়ে হোটেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের মুখপাত্র মো. সাখাওয়াত হোসাইন বলেন, বেশিরভাগ হোটেলেই অগ্রিম বুকিং হয়ে গেছে। তারা অতিথিদের জন্য নানা পরিকল্পনাও করেছেন।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আফরুজুল হক টুটুল বলেন, পর্যটকের কথা বিবেচনা করে তিন স্তরের নিরাপত্তা বলয় তৈরি করা হয়েছে। কোনো হোটেল ইন-হাউজ অনুষ্ঠান করতে চাইলে সেটাও প্রশাসন থেকে অনুমতি নিয়েই করতে হবে।

কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খন্দকার ফজলে রাব্বী বলেন, আমরা সর্বোচ্চ সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন রাখব। হোটেলগুলোতেও যথেষ্ট নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হবে।

কক্সবাজারের ৪ শতাধিক আবাসিক হোটেল, মোটেল, গেস্ট হাউস ও রিসোর্টে দেড় লাখ পর্যটক অবস্থান করতে পারেন। কিন্তু এখন তারও বেশি পর্যটকের পদভারে মুখরিত কক্সবাজার।

Check Also

ঠাকুরগাঁওয়ে ভাষাসৈনিক দবিরুল ইসলাম স্মরনে বৃক্ষরোপন কর্মসূচী

বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, সাবেক এমএলএ, ভাষাসৈনিক, জেলার কৃতিসন্তান, বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ট সহচর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *