Breaking News
Home / প্রচ্ছদ / করোনায় মৃত ব্যক্তি লাশ নিজ হাতে দাফন করবঃ তরুণ সাংবাদিক রাসেল

করোনায় মৃত ব্যক্তি লাশ নিজ হাতে দাফন করবঃ তরুণ সাংবাদিক রাসেল

রাসেল মৌলভীবাজার প্রতিনিধি
রাসেল তিনি একজন তরুণ সাংবাদিক, বর্তমানে জাতীয় দৈনিক সরেজমিন বার্তা পত্রিকা জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করেন, তিনি মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের অনার্স বিভাগের একজন ছাত্র।তিনি বলেন মৌলভীবাজার শহরে যে কোনো জায়গায় যে কেউ মারা গেলে পাশেপাশে যারা অাছেন,যদি দেখেন গোসল করানোর, খবর খনন, জানাজা হচ্ছে না, সাথে সাথে নক দিবেন অামি রেডি অাছি। বিনিময়ে কিছুই চাইনা, অামার খরছে যাতায়াত করবো ইনশাআল্লাহ। অনলাইন নিউজ পোর্টালে এ খবর জানান এই তরুণ সাংবাদিক রাসেল, মানবতার পক্ষে বিরল। তিনি সাধারন মানুষের আস্তার প্রতিক। মানবতায় নিজেকে উজার করতে সদা জাগ্রত।করোনার ভয়ে যখন মানুষ ঘর বন্ধি, অাতঙ্কে সারা দুনিয়া। আক্রান্ত ব্যক্তির লাশ কবর দেওয়া হয় গোসল জানাজা ছাড়াই। ঠিক তখনই এই তরুণ সাংবাদিক রাসেল এই সিদ্ধান্ত নেন।
তিনি শিক্ষিত সমাজের প্রতি আহ্বান করে বলেন পৃথিবী থমকে গেছে।চারিদিকে শুধু অসহায়ের আর্তনাদ।একটু বুক ভরে অক্সিজেন নিবে।তারো ক্ষমতা নেই।স্বজনের বিচ্ছেদ ঘটছে চোখের সামনে।শেষ বিদায়ে আপন হাতে গোসল দিবে।তাও নিষেধ!একটু সুস্থরা স্বেচ্ছা বন্দী।কোথাও গিয়ে একটু বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখবে।তারও সুযোগ নেই।লক ডাউনে রয়েছে পৃথিবীর প্রতিটি প্রান্তর।শুধু একটি আতংক। ‘করোনা’পুরো পৃথিবীর সাথে আমার ছোট্টো দেশও রেহাই পায়নি।এখন মৃত্যের সংখ্যা এক!জানিনা এর সংখ্যা কোন দিকে যাচ্ছে।পরবর্তীনামকিআমার,আপনার,নাকি আমাদের স্বজন কেউ।আমার দেশ জাস্টিন ট্রুডোর দেশ নয়।তাই সবাইকে একমাসের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ঘরে পৌঁছে যাবে।এই আশা টাও গ্রহণ যোগ্য নয়।আমারটি গরীব গরীব দেশমোটে,মজুর,চাষি,জেলের সাথে অল্প কিছু শিক্ষিত সমাজের দেশ।এই অল্প সংখ্যক শিক্ষিত সমাজ গড়ে তুলতে সহস্র ফোঁটা ঘামের বিসর্জন দেন ঐ মোটে মজুররাই।তাদের ঘামে সৃষ্ট আমরা যারা শিক্ষিত বলে পরিচয় দিয়ে থাকি।তাদের জন্য একটু কিছু করা কি আমাদের উচিত বলে মনে হয়না?প্রশ্ন করতে পারেন,প্রতিষেধ আবিস্কার হয়নি।এখানে আমরাই বা কি করতে পারি?ভাই/বোন,আমাদের এদেশ সহস্র গ্রামের সমষ্টি।আপনি আমিও গ্রামেরই একজন।গ্রামের মানুষ কতটা সচেতন সেটা অবশ্যই আপনার জানা বিষয়।প্রতিষেধক আবিস্কৃত না হোক।প্রতিরোধ পদ্ধতিতো আমাদের জানা বিষয়চলুননা আমরা নিজ নিজ গ্রামের জন্য কিছু একটা করার সিদ্ধান্ত নিয়।আপনি পদক্ষেপ নেন।দেখবেন আপনার দিকে প্রসারিত হবে আরো অনেক হাত।তাতেই হয়তো কিছুটা প্রতিরোধ হবে বলে আশা করছি।এই অসহায় মুহুর্তে এই কিছুটাও অনেক কিছু।এর জন্য সভা সমাবেশের প্রয়োজন নেই।
প্রতিটি গ্রামের শিক্ষিত সমাজ মিলে একটা মেসেঞ্জার গ্রুপ খুলে।সেখানে করোনা প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় বিষয় গুলো আলোচনা সাপেক্ষে কর্মসূচী গ্রহণ করবেন।তারপর দুই বা তিনজন মিলে এই কর্মসূচি বাস্তবায়নের প্রচেষ্টায় এগিয়ে যাবেন।
এক্ষেত্রে বাহ্যিক প্রস্তুতি গুলো আপনারা নিজে আগে করবেন।যেমন মাক্স পরিধান করা।গ্লাভস পরিধান করা।সাবান ব্যবহার সহ সব গুলো।
চলুননা এই অসহায় মুহুর্তে মানবতার একটু উপকারে আসি।আমরাইতো শিখছি,
“মানবতার প্রয়োজনে প্রান বিলিয়ে দেয়াই মনুষ্যত্ব”

Check Also

সিংড়ায় বিধবা নারীকে প্রকাশ্য লাঠিপেটা করায় অভিযুক্ত আটক

আল-আমিন সিংড়া নাটোর ঃ নাটোরের সিংড়ায় এক বিধবা নারীকে লাঠিপেটা করছে এক যুবক। এমন একটি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *