Breaking News
Home / প্রচ্ছদ / তানোরে ৯মাস থেকে সহকারী কমিশনার ভুমি না থাকায় হয়রানি ও ভোগান্তি চরমে

তানোরে ৯মাস থেকে সহকারী কমিশনার ভুমি না থাকায় হয়রানি ও ভোগান্তি চরমে

সুজন রাজশাহী প্রতিনিধি:

৯মাস থেকে রাজশাহীর তানোর সহকারী কমিশনার (ভূমি) না থাকায় স্থবির হয়ে পড়েছে সাভাবিক কাজকর্ম। ভূমি সংক্রান্ত কাজকর্মে মারাত্নক হয়রানি ও বিড়ম্বনাসহ ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষ।
সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও ভুক্তভোগিদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গত বছরের ১৩ জুন তানোর সহকারি কমিশনার (ভূমি) আব্দুল্লাহ-আল-মামুন অন্যত্র বদলি হয়ে যাওয়ার পর তানোর ভুমি অফিসে আর কোন সহকারী কমিশনার (ভূমি) কে পোষ্টিং করা হয়নি।
বর্তমান তানোর উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে তানোরে যোগ দেয়ার আগে তানোর সহকারী ভুমিার দায়িত্ব পালন করছিলেন গোদাগাড়ী সহকারী কমিশনার ভুমি। ওই সময় স্থবির হয়ে পড়া তানোর উপজেলা ভুমি অফিসের কাজকর্মে স্থবিরতার সৃষ্টি হয়। তানোর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুশান্ত কুমার মাহাতো তানোর উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে যোগ দেয়ার পর তিনি সহকারী (ভুমি)’র দায়িত্ব পালন করছেন। কিন্তু ভুমি’র সাভাবিক খুবই জরুরী কাজগুলো করা হলেও প্রানচাঞ্চল্যতা ফিরেনি ভুমি অফিসে। ফলে সাধারন মানুষকে খারিজসহ অন্যান্য কাজে এসে দিনের পর দিন হয়রানি হয়ে ফিরে যাচ্ছেন। সেই সাথে প্রতিনিয়ত চরম ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেন সাধারন মানুষ।
তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, এসিল্যান্ড না থাকার কারণে খারিজ হচ্ছে খুবই ধীর গতিতে। সহকারী ভূমি না থাকায় কোন কাজ হচ্ছেনা জানিয়ে আক্ষেপ করছেন ভুমি সংক্রন্ত কাজে আসা সাধারন মানুষ। অনেক কৃষক জমি খারিজের জন্য মাসের পর মাস অফিসে ধর্ণা দিয়ে ঘুরছেন। কিন্তু জরুরী ভাবে জমি খারিজ করতে পারছেন না, অনেক সময় লাগছে ভুমি সংক্রান্ত কাজে। তবে, তানোরে এসিল্যান্ড নিয়োগ করা হলে এই সমস্যা লাঘব হতে পারে বলে দাবি করেন সাধারন মানুষ। তানোর দলিল লেখক সমিতির সাবেক সভাপতি তাছির উদ্দিন ও সাবেক সাধারন সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেন, জমি বেচা কেনার জন্য ইচ্ছে করলেও কেউ জরুরী ভাবে জমি খালিজ করতে পারছেন না। দিনের পর দিন ঘুরে জমি সংক্রান্ত কাজকর্ম করতে হচ্ছে। তারা বলেন, এসিল্যান্ড না থাকায় ভূমি সংক্রান্ত কাজকর্ম একদিকে যেমন স্থবির হয়ে পড়েছে অন্যদিকে জনসাধারন জমি খারিজ করতে না পারায় বিক্রি করতে পারছেন না। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভূমি অফিসের এক কর্মচারি বলেন, এসিল্যান্ড স্যার না থাকায় কাজকর্ম স্থবির ও ধীর গতিতে এগুচ্ছে। তিনি বলেন, দিনের পর দিন সাধারন মানুষ এসে ঘুরে যাচ্ছেন, এঅবস্থায় এসিল্যন্ড নিয়োগ করা জরুরি হয়ে পড়েছে। তিনি আরো বলেন, তানোর উপজেলা নির্বাহী অফিসার তার নিজের দপ্তরের সরকারী কাজে প্রচুর ব্যাস্থ্য থাকেন, এর মধ্যে ভুমি অফিসের কাজকর্মের দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে তাই একটু সময় লাগছে, ফলে ধীর গতিতে এগোচ্ছে ভুমি অফিসের কাজকর্ম।
এব্যাপারে তানোর সহকারী (ভুমি)’র দায়িত্ব প্রাপ্ত তানোর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, ভুমি অফিসের দৈন্দিন কাজকর্ম নিয়ম অনুযায়ী করা হচ্ছে। তবে, তিনি এ্যাসিল্যান্ড না থাকায় কিছুটা সমস্যা হচ্ছে হলেও স্বীকার করেন।

Check Also

ঠাকুরগাঁওয়ের নারগুন ইউনিয়ন পরিষদের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষনা

সদর উপজেলার নারগুন ইউনিয়ন পরিষদের ২২-২৩ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষনা করা হয়। বৃহস্পতিবার( ২৬ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *